কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাপন্থী ২৫ জন নেতাকে বিদ্রোহের অভিযোগে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছে স্পেন। তাদের বিরুদ্ধে সরকারি অর্থ আত্মসাৎ ও সরকারি নির্দেশ অমান্যের অভিযোগও আনা হচ্ছে। শুক্রবার স্পেনের সর্বোচ্চ আদালত এবিষয়ে একটি রুল জারি করেছে। এর মধ্যে দিয়ে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাপন্থী নেতাদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া শুরু হচ্ছে।

দোষী সাব্যস্ত হলে মার্তা রভিরা নামের এক নেতার ২৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। এর আগে তিনি বলেছিলেন, স্পেন থেকে পালিয়ে তিনি আরও ৫ নেতার সঙ্গে নির্বাসনে যোগ দিয়েছেন।

শুক্রবার স্পেনের সুপ্রিম কোর্টের বিচারক পাবলো লারেনা এই ছয়জন নির্বাসিত নেতার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

গত বছর স্পেন সরকারের নিষিদ্ধঘোষিত এক গণভোটে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবির প্রতি সমর্থন উঠে আসে। এরপর কাতালোনিয়ার নেতারা স্বাধীনতার ঘোষণা দেন।

কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাপন্থীরা পুরো বিচারপ্রক্রিয়া ইউরোপ ও অন্যান্য স্থান থেকে তীক্ষ্ণভাবে নজর রাখবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে স্পেনের এই দমন অভিযানের সমালোচনা করেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো।

বিচারক লারেনা জানিয়েছেন, রভিরা ও সাবেক কাতালান প্রেসিডেন্ট পুইজমেন্টসহ ১৩জন নেতাকে বিদ্রোহের অভিযোগে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হবে। এছাড়া আরও ১২ জনের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ বা সরকারি নির্দেশ অমান্য করে গণভোট আয়োজনের অভিযোগ আনা হবে।

পুইজমেন্টসহ স্বাধীনতাপন্থী নেতারা কোনও অন্যায় করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাদের দাবি, জনগণ তাদের স্পেন থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার অধিকার দিয়েছে। সূত্র: রয়টার্স।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য