কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাপন্থী ২৫ নেতার বিদ্রোহের বিচারের আদেশ দিয়েছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। শুক্রবার রাতে ওই আদেশের পর কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাপন্থীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে স্পেনের পুলিশ। বার্সেলোনায় ফেডারেল ভবনের বাইরে সংঘর্ষে আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এই খবর জানিয়েছে।

গত বছর স্পেন সরকারের নিষিদ্ধঘোষিত এক গণভোটে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার দাবির প্রতি সমর্থন উঠে আসে। এরপর কাতালোনিয়ার নেতারা স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। শুক্রবার স্পেনের সর্বোচ্চ আদালতের জারি করা এক রুলে স্বাধীনতাপন্থী ২৫ জন নেতাকে বিদ্রোহের অভিযোগে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর ঘোষণা দেয়।

দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের ৩০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে। এর মধ্যে পাঁচ নেতার জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়। বাকি নেতারা পলাতক বা নির্বাসনে থাকায় শনিবার কাতালোনিয়ার সংসদের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রার্থী জরডি তুরুলকে কারাগারে পাঠানো হলে বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করে।

অবশ্য আদালতের সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগেই শুক্রবার রাতে সমবেত হওয়ার সিদ্ধান্ত ছিল স্বাধীনতপন্থিদের। রায় ঘোষণা হলে বিক্ষোভ বেগবান হয়। কাতালোনিয়ার পতাকা উড়িয়ে স্বাধীনতাপন্থী স্লোগান উচ্চারিত হয়। অনেকেই রায় ঘোষণাকারী সুপ্রিম কোর্টের বিচারক ও স্পেনের রাজা ফেলিপের ছবিতে আগুন ধরিয়ে দেন। বার্সেলোনা ছাড়াও বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কয়েকটি স্থানে বিক্ষোভকারীরা পুলিশ ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা করলে সহিংসতার ঘটনা ঘটে। তবে কাতালোনিয়ার সিটি সেন্টারে অপেক্ষাকৃত শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কারমি সালা নামে এক বিক্ষোভকারী বিবিসিকে বলেন, ২০ লাখ মানুষ স্পেন থেকে বেরিয়ে স্বাধীনতা চায়। আর তারা সবাইকেই কারাগারে পুরতে পারবে না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য