ভারতের আসামে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণের পর তার শরীরে কেরসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ধর্ষণকারীরা।

শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়ে যাওয়া ওই ছাত্রী শুক্রবার রাতেই হাসপাতালে মারা যায়।

তবে মারা যাওয়ার আগে ওই ছাত্রী পুলিশকে জবানবন্দি দিয়ে গেছে বলে জানায় এনডিটিভি।

পুলিশের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, ওই ছাত্রী পুলিশকে চার ধর্ষকের নাম এবং তারা তাকে ধর্ষণের পর কেরসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার কথা বলে গেছে।

নাগাওঁ জেলার ধনিয়াবেতি এলাকায় শুক্রবারের এ ঘটনার পর উত্তেজনা বিরাজ করছে। সেখানে পুলিশ টহল দিচ্ছে।

স্থানীয়রা জানান, এটা ওই এলাকায় ঘটা এ ধরনের একমাত্র ঘটনা নয়। সেখানে নারীদের কোনো নিরাপত্তা নেই।

গত ১৭ মার্চ নাগাওঁ থেকে পুলিশ আট ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে ৩৫ বছরের এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে।

ট্রেন থেকে নামিয়ে নিয়ে স্বামীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে ওই নারীকে ধর্ষণ করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য