ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনিতে, পাথর উত্তোলনের জন্য আরো একটি নতুন স্টোপ উদ্বোধন করেছেন, বিদুৎ জ্বালানী ও খনিজ মন্ত্রী নসরুল হামিদ এমপি। এসময় তিনি দেশে পাথরের চাহিদা পুরন করার জন্য, মধ্যপাড়া পাথর খনিতে পাথর উত্তোলন আরো বৃদ্ধি করার তাগিদ দিয়েছেন।

শুক্রবার বেলা ১০ টায় দিনাজপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনিতে, পাথর উত্তোলনের জন্য ৯ নং নতুন স্টোপ উদ্বোধন উপলক্ষে, পাথর খনিটির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জার্মানিয়া ট্রাষ্ট কনসোডিয়াম (জিটিসি) এর উদ্যোগে খনিটির গ্রাউন্ড মাঠে এক সুধি সমাবেশ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই তাগিদ দেন।

সুধি সমাবেশে জার্মানীয়া করপোরেশন বাংলাদেশ লিমিটেড এর চেয়ারম্যান ডঃ সেরাজুল ইসলাম কাজী এর সভাপতিত্বে, প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জনাব নসরুল হামিদ এমপি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোঃ ফয়েজ উল্লাহ, বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও এমজিএমসিএল বোর্ড এর চেয়ারম্যান রুহুল আমীন ।

এতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কেম্পানী লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী এসএম নুরুল আওরঙ্গজেব, জিটিসি’র প্রকল্প পরিচালক মিঃ আলিসকসেন্দ্রো মালসভ, চীপ অব মাইন অপারেশন ই্উরি দেভিয়াতভ, মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কেম্পানী লিমিটেড জিএম (ভারপ্রাপ্ত) আসাদুজ্জামান আসাদ, জিটিসি’র মহাব্যবস্থাপক জনাব জাবেদ সিদ্দিকী, জিএম জামিল আহম্মেদসহ এমজিএমসিএল এবং জিটিসি’র পদস্থ কর্মকর্তাগণ।

জ্বালানী খনিজ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন দেশ এগিয়ে যাচ্ছে এখন অনেক অবকাঠামো উন্নায়ন হবে, তাই পাথরের অনেক প্রয়োজন।

প্রতি বছর বিদেশ থেকে পাথর আমদানী করতে বিপুল পরিমান বৈদাশিক মুদ্রা খরছ করতে হয়ে, যদি আমরা দেশেই পাথরের চাহিদা পুরন করতে পারি, তাহলে একদিকে যেমন বৈদাশিক মুদ্রা বেচে যাবে, একই সাথে জাতিয় অর্থনীতিতে প্রভাব পড়বে।

এক সময় এই খনি থেকে মাত্র এক হাজার মেটন পাথর উত্তোলন হত, এখন প্রতিদিনে প্রায় ৫ হাজার পাথর উত্তোলন হওয়ায় মন্ত্রী সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, এই উৎপাদন প্রতিদিনে ১০ হাজার থেকে ৩০ হাজারে উন্নতি করতে হবে, এজন্য তিনি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও সরকারী খনি কর্তৃপক্ষকে এক হয়ে কাজ করার আহবান করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য