শুকিয়ে গেছে তিস্তামুখ-যমুনা নদী। চৈত্র মাস পড়তে না পড়তেই নদী পানিশুন্য। চারদিকে শুধুই ধু ধু বালুচর। খরস্রোতা এ নদীর বুকে এখন ইরি বোরো, মিষ্টি আলু ও বাদামসহ নানা আবাদ করছেন কৃষকরা।

তলানীতে সামান্ন পানিতে নৌকা না চলায় পায়ে হেটে এপার-ওপার পাড়ি জমাচ্ছে নদী পাড়ের মানুষ। গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার একাংশ ও ফুলছড়ি উপজেলার বুকচিরে বয়ে যাওয়া তিস্তামুখ-যমুনা নদীর শাখা প্রশাখায় পানি না থাকায় এখন মরা খালের রুপ নিয়েছে।

চৈত্র মাস শুরুতেই নদী শুকিয়ে গেছে। নদীপাড়ের বাসিন্দা হলদিয়ার বাপ্পি মন্ডল জানান, এত আগেই নদীর পানি শুকিয়ে যেন মরে যাচ্ছে। নদীর বুকে হরেক রকমের সবজির আবাদ ছাড়াও ফসলি আবাদ করছে কৃষকরা।

যমুনাপাড়ের বাসিন্দা কৃষক জমির উদ্দিন বলেন এ সময়ে নদীর মাঝে আবাদ দেখে মনেই হবেনা এটি নদী।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য