৭৬ শতাংশেরও বেশি ভোট পেয়ে আবারো রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন ভ্লাদিমির পুতিন। রবিবার দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তবে বিরোধীরা অভিযোগ করেছেন, অনেককেই ভোট দেয়ার জন্য বাধ্য করা হয়েছে।

ভোট গণনা শেষে রাশিয়ার কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, তিনি ৭৬ শতাংশেরও বেশি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। জয়ের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় পুতিন বলেন, বিগত বছরগুলোর অর্জনকে স্বীকৃতি দিয়েছে ভোটাররা।

এর ফলে তিনি প্রায় ২৫ বছর ক্ষমতায় থাকবেন। গত ১৮ বছর ধরে তিনি ক্ষমতায় আছেন। ভোটারদের অনেকেই বলছেন, বাইরের শত্রু ভাবাপন্ন দেশ থেকে রাশিয়াকে রক্ষায় সক্ষম ৬৫ বছর বয়সী পুতিনই।

ইউক্রেনের ক্রিমিয়ায় রাশিয়ার আক্রমণ, মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ ও সিরিয়ায় সামরিক অভিযান পশ্চিমাদের সমালোচনার শিকার হলেও রুশদের কাছে পুতিন একজন শক্তিশালী নেতা হিসেবেই পরিচিত।

বিরোধীরা অভিযোগ করেন, অনেককেই ভোট দিতে বাধ্য করা হয়েছে। ভোট পড়ার হার যাতে কম না হয় এবং বিতর্ক সৃষ্টি না করতে পারে সেজন্যই এই কৌশল নিয়েছে সরকার। অনেককেই ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিয়ে সেলফি তুলতে দেখা গেছে।

অনেক কোম্পানি আবার গাড়ি ভাড়া করে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভোট দিতে পাঠিয়েছে। ভোট দিয়ে প্রমাণ দিতে বলা হয়েছে অনেক ভোটারকে। এজন্য ভোট কেন্দ্রের সামনে বিভিন্ন গ্রুপকে একসঙ্গে ছবি তুলতে দেখা গেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য