‘কোটায় কামলা-মেধায় আমলা, বঙ্গবন্ধুর বাংলায়-বৈষম্যের ঠাঁই নাই’ প্রতিবাদী এমন স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নং গেইট সংলগ্ন পার্কমোড় চত্বর। সরকারী চাকুরীতে বিদ্যমান কোটা ব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে রবিবার ওই স্থানে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন পালনকালে এসব স্লোগান দেয় রংপুরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, রংপুর বিভাগীয় কমিটির ব্যানারে আয়োজিত বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, কারমাইকেল কলেজ, রংপুর সরকারী কলেজ, সরকারী রোকেয়া কলেজ ও মডেল কলেজের সহশ্রাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

শিক্ষার্থীরা ব্যানার হাতে পার্কমোড়ে সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ শেষে ২ নং গেইটের সামনে মানববন্ধন করে। কারমাইকেল শিক্ষার্থী রায়হান শরিফের পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শাকিল, আরিফ, মামুন, ওয়াহেদ, কারমাইকেল কলেজের শিক্ষার্র্থী মাসুদ, আরিফ, হানিফ, রায়হান, সোহেল ও মডেল কলেজের শিক্ষার্থী বিপ্লব।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুর বাংলায় বৈষ্যমের কোনো ঠাঁই নেই। এদেশকে মেধাশুন্য করতে এধরণের কোটা পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। এর মাধ্যমে মেধাবিদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। ফলে, অযোগ্যরা রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে বসে যাচ্ছে। এতে, দেশে দুর্নীতি বাড়ছে, উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। বক্তারা আরও বলেন, একটি দেশে কোটা থাকতে পারে, তাই বলে ৫৬ শতাংশ কোটা রাখা কোনোভাবেই যুক্তি সংগত নয়।

কোটা ব্যবস্থা হচ্ছে কোনো পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়কে সামনে এগিয়ে নেয়ার ব্যবস্থা। কিন্তু, বাংলাদেশে যে কোটা প্রবর্তন করা হয়েছে এর মাধ্যমে শিক্ষিত ও মেধাবিদের পিছিয়ে দেয়া হচ্ছে। একটি দেশে প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে কোটা ব্যবস্থা চলতে পারে না। মানববন্ধন থেকে গত কয়েকদিন আগে একই দাবিতে আন্দোলন চলাকালীন ঢাকায় ৬৩ শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার ও অজ্ঞতনামা ৭শ’ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করায় তীব্র নিন্দা জানায় শিক্ষার্থীরা। এসময় অতিদ্রুত কোটা সংস্কারের আহবান জানান বক্তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য