যুবতী দেলদুয়ারকে (তানিয়া) প্রতিবেশী রাজাকার ’৭১-এ পাকবাহিনীর হাতে তুলে দেয়। পাক বাহিনীর কাছে বন্দী থাকা অবস্থায় নির্যাতিত হয়ে রেড ক্রিসেন্টের সহায়তায় সে একটি ছেলে সন্তান প্রসব করে।

সে সময় সুইডিশ এক দম্পতি দেলদুয়ারার বাচ্চাকে (জোভান) পালক নেন। বিদেশীদের কাছে থেকে বড় হয় যুদ্ধশিশুটি। বিয়ের করানো সময় হলে সুইডিশ দম্পতি সত্য ঘটনা খুলে বলেন জোভানকে। তখনই বিপত্তি বাঁধে।

পিতা মাতার খোঁজে জোভান তার হবু স্ত্রীকে নিয়ে বাংলাদেশে ফেরেন। অ্যাম্বাসি থেকে খোঁজ খবর নেয়া শুরু হয়। কিন্তু আসলে অ্যাম্বাসি কি সন্ধান পাবেন জোভানের মার? না কী সত্য উদঘাটনের অভাবে জোভানের স্বপ্ন এখানেই থেমে যাবে…?

মাসুদ আহমেদের ‘রৌদ্রবেলা ও ঝরাফুল’ উপন্যাসের ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে টেলিফিল্ম যুদ্ধশিশু। নাট্যরূপ দিয়েছেন মানস পাল ও পরিচালনা করেছেন গোলাম হাবিব লিটু।

টেলিফিল্ম টিতে অভিনয় করেছেন, তানিয়া আহমেদ (দেলজুয়ারা), ফারহান আহমেদ জোভান (যুদ্ধশিশু), জার্মানশিল্পী দোরোথিয়া বরকসকি, আফরোজা বানু প্রমুখ। নাটকটি চ্যানেল আইতে প্রচার হবে ২৬শে মার্চ রাত ৮টায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য