তুরস্কের সেনাবাহিনীর আলাদা দুটি হামলায় সিরিয়ার আফরিন এলাকায় অন্তত ২২ জন বেসামরিক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

সিরিয়ার সরকারি বার্তা সংস্থা সানা জানিয়েছে, তুর্কি বিমান থেকে আফরিনের একটি হাসপাতালের ওপর বোমাবর্ষণের পর সেখান ১৬ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি শিশু রয়েছে। কুর্দি রেড ক্রিসেন্ট ওই হাসপাতালে সেবা দিচ্ছিল এবং তারা এ প্রাণঘাতী হামলার কথা নিশ্চিত করেছে।

কুর্দি গেরিলা গোষ্ঠী পিপল’স প্রটেকশন ইউনিট বা ওয়াইপিজি এবং ব্রিটেনভিত্তিক কথিত মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বলেছে, শুক্রবার রাতে আফরিনের দুটি হাসপাতালে তুর্কি বিমান হামলা চালিয়েছে এবং ১৬ জন নিহত হয়েছে।

তবে তুর্কি সামরিক বাহিনী হাসপাতালে হামলার কথা অস্বীকার করেছে। তারা দাবি করেছে যে, তুর্কি বাহিনী এমনভাবে অভিযান চালাচ্ছে যাতে বেসামরিক লোকজনের কোনো ক্ষতি না হয়।

অন্যদিকে, সিরিয়ার বার্তা সংস্থা সানা আরেক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, তুর্কি সমর্থিত কথিত ফ্রি সিরিয়ান আর্মির গেরিলাদের গোলাবর্ষণে আফরিন শহরে অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছে।

সিরিয়ান অবজারভেটরির তথ্য অনুসারে, গত ২০ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া তুর্কি বাহিনীর অভিযানে এ পর্যন্ত ২৮০ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

এছাড়া, আফরিন প্রশাসক কমিটির সিনিয়র সদস্য হেভি মুস্তাফা জানিয়েছেন, তুর্কি অভিযানে আফরিন শহর থেকে এ পর্যন্ত দেড় লাখ মানুষ উদ্বাস্তু হয়েছে। তিনি জানান, লোকজন মূল আফরিন শহর ছেড়ে আশপাশের কুর্দি অধ্যুষিত এলাকা ও সরকারি নিয়ন্ত্রিত এলাকাগুলোতে চলে যাচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য