আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিরোধের পর মরিশাসের প্রেসিডেন্ট আমিনা গুরিব-ফাকিম পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন।

সাংবিধানিক সংকট এড়াতে প্রেসিডেন্ট আলঙ্কারিক এ পদটি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে শনিবার তার আইনজীবী ইউসুফ মোহামেদ স্থানীয় রেডিও প্লাসকে জানিয়েছেন বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

“দেশ ভুক্তভোগী হোক, তা চান না তিনি; তাই দেশের স্বার্থেই সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন,” বলেন ইউসুফ।

স্থানীয় এল এক্সপ্রেস পত্রিকায় আন্তর্জাতিক একটি বেসরকারি সংস্থার ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে আমিনা ইতালি ও দুবাই থেকে গহনা ও পোশাক কিনেছেন এমন সংবাদ প্রকাশের পর থেকে তার ওপর পদত্যাগের চাপ বাড়তে থাকে।

আর্থিক কেলেঙ্কারির ঘটনায় তিরস্কার জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী প্রভিন্দ জুগনাথও প্রেসিডেন্টকে পদত্যাগের আহ্বান জানান।

বুধবার আমিনা এ আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেন; কোনো ধরনের অন্যায় করার কথা অস্বীকার করে প্রেসিডেন্ট এ সংক্রান্ত প্রমাণ আদালতে উপস্থাপন করতে প্রস্তুত বলেও জানান।

অব্যাহত চাপের মুখে শনিবার তার পদত্যাগের ঘোষণা আসে।

পার্লামেন্টের স্পিকারের কাছে আমিনা তার পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন এবং ২৩ মার্চ দপ্তর ছাড়বেন বলে আইনজীবী ইউসুফ জানিয়েছেন।

ভারত মহাসাগরের মধ্যে অবস্থিত আফ্রিকার দেশ মরিশাসকে আফ্রিকা ও এশিয়ার সংযোগস্থল হিসেবে বিবেচনা করা হয়। দেশটির পদত্যাগী প্রেসিডেন্ট আমিনা আফ্রিকা মহাদেশের একমাত্র নারী রাষ্ট্রপ্রধান ছিলেন।

চিনি, বস্ত্র এবং পর্যটন শিল্পের ওপর নির্ভরশীল দেশটি সাম্প্রতিক সময়ে অফশোর ব্যাংকিং, আউটসোর্সিং ও বিলাসবহুল নির্মাণ শিল্পে মনোযোগী হয়েছে বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য