পুরুষদের সমান উত্তরাধিকারের দাবিতে মিছিল করেছে তিউনিসিয়ার নারীরা।

এই দাবিতে শনিবার কয়েকশত নারী দেশটির রাজধানী তুনিসের রাজপথে নেমে আসে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আরব বিশ্বে পুরুষদের সমান উত্তরাধিকারের বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তোলাকে প্রায়ই একটি নিষিদ্ধ বিষয় হিসেবে দেখা হয়। সেই তুলনায় ওই অঞ্চলের অন্যান্য দেশগুলোর চেয়ে উত্তর আফ্রিকার এই মুসলিম দেশটিতে নারীদের বেশি অধিকার দেওয়া হয়েছে।

গত বছর থেকে দেশটির মুসলিম নারীদের অমুসলিমদের বিয়ে করার অধিকারও দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু শনিবারের মিছিলকারীরা জানিয়েছেন, তারা চান ইউরোপীয় নারীদের সঙ্গে তাদের তুলনা করা হোক এবং তাদের সমান উত্তরাধিকার দেওয়া হউক।

এই দাবিতে মিছিল নিয়ে তারা পার্লামেন্ট ভবনের দিকে এগিয়ে যান। মিছিলে কিছু পুরুষও যোগ দেন।

‘একটি সুশীল রাষ্ট্রে আপনি যা পান আমিও ঠিক তাই পাই’, শ্লোগান লেখা একটি ব্যানার বহন করে মুসলিম উত্তরাধিকার আইন বাতিলের দাবি তুলেছেন তারা।

মুসলিম উত্তরাধিকার আইন অনুযায়ী একজন নারী যা পান পুরুষ তার দ্বিগুণ পায়।

কাওথার বউলিলা নামের এক আন্দোলনকারী বলেন, “এটা সত্য আরব নারীদের তুলনায় তিউনিসিয়ান নারীরা বেশি অধিকার ভোগ করে, কিন্তু আমরা চাই আমাদের ইউরোপী নারীদের সঙ্গে তুলনা করা হোক।”

গত অগাস্টে দেশটির প্রেসিডেন্ট, যিনি একজন সেক্যুলার রাজনীতিক, নারীদের অধিকার এগিয়ে নেওয়ার লক্ষে খসড়া প্রস্তাব পেশ করতে একটি কমিটি গঠন করেন।

তিউনিসিয়াই একমাত্র দেশ যেখানে ‘আরব বসন্ত’ সফল হয়ে রাজনৈতিক স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। ২০১১ সালে ‘আরব বসন্ত’ নামে পরিচিত রাজনৈতিক আন্দোলনে দেশটির একনায়ক জিনে এল আবিদিন বেন আলী ক্ষমতাচ্যুত হন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য