আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে মাত্র ২ ঘটনার ব্যবধানে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ১১ ও আহত হয়েছেন অন্ততঃ ২৫। এ সড়ক দূর্ঘটনা দু’টি ঘটেছে, গতকাল শনিবার ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে সদরের সরকার তেলের পাস্প ও জুনদহ বাজার নামক স্থানে।

থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রংপুর-বগুড়া মহাসড়কে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সরকার তেলের পাম্প সামনে রংপুুরের সিঙ্গেরগাড়ী থেকে গাজীপুর একটি দরবার শরীফ গামী এসএন ট্রাভেলস্রে একটি বাসের (ঢাকা মেট্রো-চ-৪৭৭৮) সামনের চাকা ফেঁটে নিয়ন্ত্রণ হারায়। বিপরীত দিক থেকে আসা ঢালাই মিক্সিং মেশিনবাহী একটি ট্রলির সাথে মুখোমুখি সংষর্ঘ ঘটে।

এতে ট্রলিতে থাকা মেশিন মিস্ত্রিসহ ৪ জন ঘটনাস্থলেই নিহত এবং ১২ জন হন। রাজু মিয়া (২৭), জাকিরুল (২৫) ও খসরু (৫৫)সহ নিহত ৪ জনই গোবিন্দগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা বলে জানা যায়। এসময় বাসের ছাঁদে থাকা ৪ জন যাত্রী ছিটকে পড়েসহ অন্ততঃ ১২ জন আহত হন।

এদিকে, মাত্র ২ ঘন্টার ব্যবধানে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে রংপুর-বগুড়া মহাসড়কের জুনদহ বাজার নামক স্থানে রংপুরগামী রড বোঝাই (ঢাকা মেট্রো-ট-১৮-৪১৮৪) একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রণ খাদে পড়ে যায়।

এ ঘটনায় রডের ট্রাকের যাত্রীরা রডের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই ৭ জন নিহত এবং অন্ততঃ ১৩ জন আহত হন। স্থানীয়দের সহায়তায় ফায়ার সার্ভিস, হাইওয়ে ও থানা পুলিশ এবং উপজেলা প্রশাসন লাশ উদ্ধার তৎপরতাসহ গুরুতর আহতদের চিকিৎসার জন্য পলাশবাড়ী, গোবিন্দগঞ্জ, রংপুর ও বগুড়া মেডিকেলে ভর্তি করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায় মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে। পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় আহতরা বিভিন্ন মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত প্রাথমিক ভাবে ৩ জনের পরিচয় পেলেও অপর হতাহত ৮ ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিত করা যায়নি।

খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল ও পুলিশ সুপার (হাইওয়ে) মোস্তাফিজুর রহমান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আরিফ হোসেন তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। উদ্ধার তৎপরতায় নিয়োজিতরা সার্বক্ষনিক নজরদারি অব্যাহত রেখেছেন। জেলা প্রশাসন মৃতদেহ সৎকারে প্রত্যেক পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে ইতোমধ্যেই নগদ প্রদান করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য