আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগজ্ঞ উপজেলার সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্মে আদিবাসী সাঁওতালদের পৈত্রিক সম্পত্তি ফেরত দিয়ে তাদের পুনর্বাসন, গত বছর ৬ নভেম্বর ২০১৬ ঐ এলাকার আদিবাসী পল্লীতে পুলিশের গুলিতে নিহত তিন সাঁওতাল শ্যামল, মঙ্গল ও রমেশ হত্যাকান্ড, অগ্নিসংযোগ, নির্যাতনের ঘটনা তদন্ত করে দায়ীদের শাস্তিসহ ৭দফা দাবিতে গতকাল শনিবার সাপমারা প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগীয় প্রতিনিধি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম-ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটি, আদিবাসী বাঙালী সংহতি পরিষদ, বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ ও জনউদ্যোগ এই সমাবেশের আয়োজন করে।

বক্তারা এই হত্যাকান্ডের গোবিন্দগঞ্জের সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, সাপমারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাকিল আহম্মেদ বুলবুলসহ সকল আসামীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচার শুরুর দাবি জানান।

সমাবেশে বক্তরা বলেন ঘটনার ১৪ মাস পেরিয়ে গেলেও ৩জন সাঁওতাল হত্যাকান্ড মামলার দৃশ্যমান অগ্রগতি হয়নি। সভায় বক্তারা আরও বলেন, রংপুর চিনিকল কর্তৃপক্ষ সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্মের জন্য সংগৃহীত সাঁওতাল ও বাঙালিদের নিকট থেকে যে শর্তের ভিত্তিতে ১৮শ একর সম্পত্তি অধিগ্রহণ করেছিল তা মিল অকার্যকর, আখ চাষ বাদ দিয়ে অন্য ফসল আবাদ ও স্থানীয় দুবৃত্তদের কাছে লীজ দেয়ায় অশুভ চক্রান্তের কারণে সেই শর্ত মিল কর্তৃপক্ষ অনেক আগেই ভঙ্গ করেছেন।

এখন ঐ শর্তের ভিত্তিতেই বাগদাফার্ম এলাকার ওই সম্পত্তির মালিক আদিবাসী সাঁওতাল ও বাঙালিরা। বক্তারা অবিলন্বে আদিবাসী সাঁওতাল ও বাঙালিদের সম্পত্তি ফেরত দেবার দাবি জানান।

সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম-ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সহ-সভাপতি ফিলিমন বাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য শাহিন রহমান,সিপিবি নওগা জেলার সভাপতি অ্যাডভোকেট মহসিন রেজা, নওগাঁ বাসদ আহ্বায়ক জয়নাল আবেদীন মুকুল, রংপুর বাসদ সমন্বয়ক আব্দুল কুদ্দুস, গাইবান্ধা বাসদ সমন্বয়ক গোলামম রব্বানী, সিপিবি’র গাইবান্ধা জেলার সাবেক সভাপতি ওয়াজিউর রহমান রাফেল, আদিবাসী বাঙালি সংহতি পরিষদের আহ্বায়ক এ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু, জনউদ্যোগের সদস্য সচিব প্রবীর চক্রবর্তী, গাইবান্ধা জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল ও সহসাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মুরাদজামান রবআনী, রেজাউল করিম মাষ্টার,সবিন চন্দ্র মুন্ডা, জাতীয় আদিবাসী ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক শীকান্ত মাহতো, সুভাষ চন্দ্র হেমব্রম,নরেন চন্দ্র পাহান,সুভাষ চন্দ্র আদিবাসী নেত্রী প্রিসিলা মুর্মু প্রমূখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য