মাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও থেকেঃ ঠাকুরগাঁওয়ে ভকদগাজী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওই বিদ্যালয়ের এডহক কমিটি গঠনে সহযোগীতা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নে ভকদগাজী উচ্চ বিদ্যালটি ১৯৯২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে ২০০০ সাল অবধি নিয়মিত ম্যানেজিং কমিটির অধীনে পরিচালিত হয়ে আসছে। এরপর প্রধান শিক্ষক এর চাচা শ্বশুর- হেমাইল উদ্দিন চৌধুরীর পরামর্শে দীর্ঘ-১৪ বছর যাবৎ এডহক কমিটি করে।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির কর্ম পরিচালনা করে আসছে। স্থানীয় জনসাধারনের চাপের মুখে ১টি বার মাত্র নিয়মিত কমিটি গঠন করে। এরপর প্রধান শিক্ষক আবার এডহক কমিটি গঠন করে এবং সভাপতি হিসিবে তার শশুরের নাম শিক্ষা বোর্ডে প্রেরণ করেন। এলাকার সাধারন জনগন শিক্ষা বোর্ডে লিখিত অভিযোগ করলে শিক্ষা বোর্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সভাপতি করে এডহক কমিটি অনুমোদন প্রদান করেন।

এখন কমিটিতে নির্বাচন না হওয়ার কারন জানতে চাইলে ভকদগাজী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক- মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, স্কুল কমিটি নিয়ে মামলা চলছে। মামলার কারনে কমিটির নির্বাচন কার্যক্রম বন্ধ আছে। মামলা কেন? তিনি বলেন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ খলিলুর রহমানকে নিয়ে আমাদের কিছু জটিলতা আছে। আর কিছু বলতে না চেয়ে এরিয়ে গেলেন।

প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ খলিলুর রহমান জানান, তিনি স্কুল কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে ১৯৯৬ ইং সালে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড হতে স্বীকৃতি পান। উক্ত কমিটির মেয়াদ শেষে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমাকে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করে।

পরবর্তীতে- প্রধান শিক্ষক আমাকে কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হতে কৌশলে সরিয়ে দিলে আমি আদালতে দ্বারস্থ হই। আদালতের নির্দেশে দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড আমার নাম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে অন্তভূক্তির জন্য ১৫/১১/২০১৬ ইং তারিখে- ৫/ঝ/১৩৪/২১৫৩(৮) স্বারক প্রত্র মূলে আদেশ প্রদান করেন। উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিকুল ইসলাম তার আত্মীয় হেমায়েল উদ্দিন চৌধুরীর মাধ্যমে ২০১৬ সালে হাইকোটে একটি রীট পিটিশন করেন। হাইকোর্ট দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের আদেশকে ছয় মাসের জন্য স্থগিত করেন। উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে আমি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে অপর একটি মামলা করলে নিম্ন আদালতের স্থগিত আদেশকে স্থায়ী ভাবে স্থগিত করে আদেশ দেয়।

তারপরও প্রধান শিক্ষক সুপ্রিম কোটের আদেশ ল্্ঘংন করে কমিটি গঠনের ভোটার তালিকা প্রকাশ ও নির্বাচন না দিয়েই একের পর এক এডহক কমিটি দিয়ে বিদ্যালয়টি পরিচালনা করছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য