রাশিয়ার সেনাবাহিনী সিরিয়ার আসাদ বাহিনীর বিরিদ্ধে যুদ্ধ করা বিদ্রোহীদের পূর্ব ঘৌটা ছেড়ে চলে যাওয়ার সুযোগ দিতে একটি প্রস্তাব পাঠিয়েছে রাশিয়া। রাশিয়া চায় বিদ্রোহীরা আত্মসমর্পণ করুক।

বদলে তাদেরকে নিরাপদে পূর্ব ঘুটা ছেড়ে চলে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। বিদ্রোহীরা পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রাশিয়ার ওই প্রস্তাবের বিষয়ে কেউ তাদর সাথে যোগাযোগ করেনি। রয়টার্সের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা সিরিয়ার বিদ্রোহীদের পরিবারের সদস্য ও ব্যক্তিগত অস্ত্র নিয়ে পূর্ব ঘৌটা থেকে নিরাপদে অন্য স্থানে সরে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে চায়। যদিও বিদ্রোহীরা পূর্ব ঘৌটা ছেড়ে কোথায় যাবে সে বিষয়ে রাশিয়ার পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি।

তবে এর আগে এমন উদাহরণ আছে, যেখানে আসাদ বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করা বিদ্রোহীদের তুরস্ক সীমান্তের কাছে অবস্থিত বিদ্রোহী অধ্যুষিত এলাকায় চলে যেতে দেওয়া হয়েছিল।

আত্মসমর্পণের বদলে বিদ্রোহীদের নিরাপদে সরে যাওয়ায় সুযোগ দেওয়া প্রসঙ্গে রাশিয়ার বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘রাশিয়ার রিকনসিলেশন সেন্টার পরিবার ও ব্যক্তিগত অস্ত্রসহ পূর্ব ঘৌটা ছেড়ে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া বিদ্রোহীদের দায়মুক্তির নিশ্চয়তা দিচ্ছে। তাদেরকে চলে যাওয়ার জন্য গাড়ির ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে এবং যাত্রা পথে নিরাপত্তাও দেওয়া হবে।’

পূর্ব ঘৌটার বিদ্রোহীদের প্রধান দল ফাইলাক আল-রহমানের মুখপাত্র ওয়ায়েল আওয়ান বলেছেন, ‘রাশিয়া সামরিক উপস্থিতি বাড়াতে চায় এবং বলপূর্বক পূর্ব ঘৌটার মানুষকে উদ্বাস্তু করে দিতে চায় যা অপরাধ।’ তুরস্কের ইস্তাম্বুলে থাকা আওয়ান রয়টার্সকে বলেছেন, রাশিয়ার এই প্রস্তাবের বিষয়ে অপর পাশ থেকে কেউ যোগাযোগ করেনি।

উল্লেখ্য, সিরিয়ার সরকারি বাহিনী রাশিয়ার সহযোগিতায় বিদ্রোহীদের দখলে থাকা এলাকার প্রায় এক তৃতীয়াংশই নিজেদের দখলে নিয়ে নিতে পেরেছে। পূর্ব ঘৌটা বিদ্রোহীদের শেষ শক্তিশালী ঘাঁটি। এলাকাটির দখল নেওয়ার জন্য রাশিয়া ও আসাদ বাহিনী লাগাতার বিমান হামলা করছে। জাতিসংঘ জানিয়েছে, শুধু গত সপ্তাহেই রাশিয়া ও আসাদ বাহিনীর মুহুর্মুহু হামলায় পূর্ব ঘৌটায় অন্তত ১০০ জন মারা গেছে। আর অন্তত ৪ লাখ মানুষ ওই এলাকায় আটকে আছে। তাদের কাছে খাবার ও ওষুধ অপ্রতুল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য