দিনাজপুর সংবাদাতাঃ উদীয়মান সঙ্গীত শিল্পী দিনাজপুর কালেক্টরেট স্কুলের সহকারী শিক্ষক নাহিদুল ইসলাম নাহিদ-এর সহস্যজনক হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবীতে দিনাজপুরে মানবন্ধন করেছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট।

সোমবার বেলা সাড়ে ১২টায় দিনাজপুর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উদিচির সভাপতি ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট নেতা রেজাউর রহমান রেজু। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়,নাহিদ হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন,তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা।

নাহিদের মরদেহের ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক এম.আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডাঃ মোঃ আমির উদ্দীন তার রির্পোটে জানিয়েছেন, লাশের বুকের দুদিকে আঘাতের চিহৃ ছিলো এবং ফুসফুসের নিমাংশ থেকে প্রচন্ড রক্তক্ষরন হয়েছে।

এছাড়াও লাশের বিভিন্ন অংশে একাধিক আঘাতে চিহৃ রয়েছে। অর্থাৎ আঘাতজনিত রক্তক্ষরনে নাহিদের মৃত্যু হয়েছে। অথচ হাসপাতালে ভর্তিকালিন সময়ের চিকিৎসক ডাঃ সুশেন চন্দ্র রায় নাহিদের মৃত্যুকে হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ জনিত কারনে হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন।

তারা বলেন, এই মৃত্যুর পিছনে একজন চিকিৎসকের হাত রয়েছে তাই দ্রুততার সাথে নাহিদের মৃত্যুটিকে হৃদযন্ত্র বন্ধজনিত বলে চালানো হয়েছে। এই রহস্য উদঘাটনে পুলিশী সুষ্ঠ তদন্ত প্রয়োজন তাহলে প্রকৃত অপরাধী ধরা পড়বে।

গংবাদ সম্মেলনে দাবী করা হয়,আমরা সবকিছু মিলিয়ে দেখিছি এটি একটি সুপরিকল্পিত হত্যাকান্ড, তাই পুলিশী সুষ্ট তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত রহস্য উম্মোচন করে এই ঘটনায় জড়িতদের বিচারের মুখোমুখী করা হউক। দোষীদেও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীও করা হয়েছে।

এরআগে প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে নাহিদের স্ত্রী ওয়ারেসা শিল্পী ও বড় ভাই ডা. নুরল ইসলামসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধি ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। মানববন্ধন থেকে নাহিদের স্ত্রী ওয়ারেসা শিল্পী তার স্বামীর রহস্যজনক মৃত্যুর সঠিক তদন্ত দাবী করেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মৃতের স্ত্রী ওয়ারেসা শিল্পী, ভাই ডা. নুরল ইসলাম, সম্মিলিক সাংস্কৃতিক জোটের সাধারন সম্পাদক সুলতান কামাল উদ্দিন বাচ্চু, মহিলা পরিষদের সাধারন সম্পাদক কানিজ রহমান, উদীচীর সাধারন সম্পাদক সত্য ঘোষ ও সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের আহবায়ক আবুল কালাম আজাদ।

মানববন্ধন শেষে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট দিনাজপুর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন নাহিদের স্বাভাবিক মৃত্যুর কথা বলে প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করার অপচেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত ২৬ ফেব্রুয়ারী রাতে নাহিদুল ইসলাম নাহিদকে অজ্ঞাত স্থান থেকে রাশেদ নামে একজন ইন্টার্নী চিকিৎসক অচেতন অবস্থায় দিনাজপুর এম,আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য