বিজেপির মিত্র দল ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) প্রধান কনরাড সংমা ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন।

মঙ্গলবার কনরাডের মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার কথা আছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

গোয়া ও মনিপুরের পর মেঘালয় ভারতের তৃতীয় রাজ্য যেখানে একক বৃহত্তম দল হওয়া সত্বেও কংগ্রেস সময়মতো জোট গড়তে না পারায় সরকার গঠন করতে ব্যর্থ হলো।

রাজ্যের গভর্নর গঙ্গা প্রাসাদের সঙ্গে বৈঠক সেরে বের হওয়ার পর কনরাড বলেছেন, “এটা একক বৃহত্তম হওয়ার বিষয় না, এটা সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকার বিষয়।”

বিজেপি সমর্থিত এই জোটের প্রতি ৩৪ জন আইনপ্রণেতার সমর্থন আছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

কনরাড ভারতীয় লোক সভার সাবেক স্পিকার পি.এ. সংমার সন্তান। পি.এ. সংমাই এনপিপির প্রতিষ্ঠাতা। তার পরিবারই দলটি চালায়।

রোববার বিকেলে ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক পার্টির (ইউডিপি) প্রধান ড. ডনকুপার রায় কনরাড সংমার নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রতি সমর্থন জানানোর পর এনপিপি জোট সরকার গঠনের দাবি তোলে।

মেঘালয়ের ‘কিংমেকার’ হিসেবে আবির্ভূত হওয়া ড. রায় এনডিটিভিকে বলেছেন, “কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকারের সঙ্গে না গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কনরাড সংমার সঙ্গে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউডিপি।”

কনরাড জোটের নেতৃত্ব দিবেন এই শর্তে এনপিপি নেতৃত্বাধীন জোটকে সমর্থন দিয়েছেন ড. রায়।

এর আগে কংগ্রেস দলীয় বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সংমা ও বিজেপি নেতা হিমান্ত বিশ্ব শর্মা ড. রায়ের সমর্থন চাইতে প্রায় একই সময়ে তার বাড়িতে উপস্থিত হলে নাটকীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

পরে কংগ্রেসকে হতাশ করে রায় এনপিপি জোটের প্রতি তার দলের সমর্থনের কথা ঘোষণা করেন।

এনপিপি জোটে থাকা ৩৪ জন আইনপ্রণেতার মধ্যে ১৯ জন এনপিপির, ছয় জন ইউডিপির, চার জন পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের, দুই জন হিল স্টেট পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির ও দুই জন বিজেপির।

স্বতন্ত্র একজন আইপ্রণেতাও এই জোটে যোগ দিয়েছেন বলে জানিয়েছে বিজেপি নেতা বিশ্ব।

বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সংমা গত এক দশক ধরে মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য