তার গান-বাজনা নিয়ে তিনি বরাবরই শ্রোতা-সমালোচকদের কাছে প্রশ্নাতীত। তবে নিয়মিত গান-ভিডিও প্রকাশ এবং সেসবের গল্প-নির্মাণ-অভিনয় নিয়ে তর্ক-বিতর্ক হতেই পারে। হয়তো সেই ভাবনা থেকে হাবিব ওয়াহিদ এখন পর্দায় নিজেকে নিয়মিত ভাঙছেন- নানামাত্রিক লোকেশন, গেটআপ আর চরিত্রের ভেতরে ঢুকে।

এই যেমন গেল ক’দিন হাবিব কাটালেন খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় উপজেলার গহীন জঙ্গলে। সঙ্গে নিয়েছেন মিউজিক ইন্সট্রুমেন্ট আর একজন উঠতি মডেল। তাদের পেছনে ছিল পুরো একটা শুটিং ইউনিট। সেখানে গত হওয়া কাল (২ মার্চ) শেষ করেছেন ‘অচিন মায়া’ শিরোনামের নতুন একটি গান-ভিডিও।

হাবিবের ভাষ্যে, ‘চাইলে গানটির ভিডিও আমরা গাজীপুর শালবনেও করে ফেলতে পারতাম! কিন্তু অনেক পয়সা খরচ করে দলবল নিয়ে গিয়েছি রামগড়ে বৈচিত্রের খোঁজে। কারণ, নতুন কিছু করতে চেয়েছি আবার।’

হাবিবের জোরকণ্ঠে অনুমেয়, রামগড়ের জঙ্গলে যাওয়ার আগে যেমনটা ভেবেছেন তারচেয়েও বেশি কিছু অর্জন করে ফিরেছেন। তাছাড়া অডিও-ভিডিও প্রযোজক হিসেবে দেশের মাটিতে হাবিবের এটাই প্রথম কোনও অ্যাসাইনমেন্ট! তার প্রযোজনা সংস্থা এইচডব্লিউ প্রোডাকশনস এর ব্যানারে নির্মিত এটি ২য় ভিডিওচিত্র। প্রথম ভিডিওটি ছিল গত বছর প্রকাশিত ‘তুমিহীনা’। যার শুটিং হয়েছে স্কটল্যান্ডে। হাবিবের ইচ্ছে এই ব্যানার থেকে এবার নিয়মিত ভিডিও নির্মাণের এবং নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে সেটি প্রকাশ করার।

এদিকে রামগড়ের গহীন জঙ্গলের খবর রয়েছে আরও। গুঞ্জন রহমানের লেখা ও হাবিবের সুর-সংগীত-কণ্ঠের ‘অচিন মায়া’ গানটির ভিডিওতে মডেল হয়েছেন সেই আয়েশা মারজানা। গেল ১৪ ফেব্রুয়ারি যার দেখা মিলেছে হাবিবের পাশেই ‘তোমার চোখে জল’ ভিডিওর পরতে পরতে। মানে এবারই হাবিব ব্যাক টু ব্যাক একই মডেলকে নিয়ে কাজ করলেন।

এমন ভাষ্যে হাবিব খানিক অপ্রস্তুত। নিজেকে চটজলদি সামলে নিলেন, ‘একেবারে তড়িৎ সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে ভিডিওটির জন্য। তাছাড়া এটা তো নির্ভর করে নির্মাতার গল্প, ভাবনা ও পছন্দের ওপর। আমি তো এখানে স্রেফ একজন মডেল ছিলাম! তবে শুটিংয়ের সময় যতটুকু দেখেছি- গল্পের সঙ্গে আয়েশাকে খুব ভালো মানিয়েছে।’

প্রযোজক হিসেবে না হলেও মডেল হিসেবে হাবিবের কথায় যুক্তি আছে। তাহলে ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন কে? উত্তরে পাওয়া গেল আরেক চমক। এটি নির্মাণ করেছেন গানের চেনামুখ সংগীত পরিচালক অদিত! তিনি এর আগেও ক্যামেরার পেছনে নিজের জন্য টুকটাক কাজ করেছেন। তবে এভাবে এত বড় পরিসরে ভিডিও নির্মাণের কাজ এটাই অন্যতম।

হাবিব বলেন, ‘অদিত আমার অনেক স্নেহের ছোট ভাই। অসাধারণ মিউজিশিয়ান, সেই সূত্রে আমাদের বন্ধুত্ব। একদিন হঠাৎ করেই আড্ডার ফাঁকে প্ল্যান করি একসঙ্গে কাজ করার। অদিত অনেক কষ্ট করেছে কাজটি করতে গিয়ে। ওকে ধন্যবাদ।’
‘এখানে মেয়েটার (আয়েশা মারজানা) চরিত্রটি দেখলে চমকে উঠবেন যে কেউ। সেও দারুণ অভিনয় করেছে। এর বেশি না বলি। শিগগিরই পুরো কাজটি প্রকাশ করবো আমার ইউটিউব চ্যানেলে। আশাকরি চোখ জুড়াবে সবার।’ ওপরের কথাগুলো নিজ থেকেই বললেন, প্রযোজক, সংগীতশিল্পী, মডেল- হাবিব ওয়াহিদ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য