কাহারোল (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস সহ অধিকাংশ অফিস ভবন ও বাসা ঝুকি পুর্ণ। দরজা-জনালা ভেঙ্গে গেছে। দেয়াল ও ছাদের পলেস্তার খসে পড়েছে। বর্ষার মৌসুমে ছাদ চুয়ে কক্ষের মেঝেতে ঝড়ে পানি। কোথাও কোথাও দেওয়াল খুড়ে গাছ পালা ও লতা বের হয়ে আসে। ভেঙ্গে গেছে সানসেট। বেড়িয়ে পড়েছে রড়।

এই ধরনের ঝুকি পুর্ণ ভবনে অফিসের কাজ করছেন কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা। প্রসাশনের আন্তরিকতার অভাব ও সমন্বয়হীনতার কারনে। এসব ভবন দীর্ঘদিনেও কোন সুরাহা হয়নি। ইমারতগুলোর অধিকাংশ এখন ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ভবন গুলো পরিত্যক্ত ঘোষণার পরেও জীবনের ঝুকি নিয়ে লোকজন ভবন গুলো ব্যবহার করছে।

এসব ঝুকি পূর্ন ভবনের মধ্যে রয়েছে উপজেলা সাবরেজিষ্ট্রি অফিস, সহকারী সেটেলমেন্ট অফিস, যুব উন্নয়ন অফিস, পরিসংক্ষান অফিস, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার অফিস, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার অফিস, উপজেলা সমাজ সেবা অফিস, উপজেলা কৃষি অফিস, মহিলা বিষয় অধিদপ্তরের অফিস, কাহারোল হাসপাতালের কর্মকর্তা কর্মচারিদের কোয়াটার, থানা পুলিশ কর্মকর্তাদের কোয়াটার, উপজেলা পরিষদের কোয়াটার, উপজেলা জনসাস্থ প্রকৌশল অফিস, বি,এ,ডিসির একটি ভবন ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে।

কাহারোল উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল মান্নাফ জানান, ভবন গুলি ঝুকি পূর্ণ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। কাহারোল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাসিম আহামেদ বলেন ঝুকি পূর্ণ ভবনের তালিকা তৈরির কাজ চলছে। এই তালিকা জেলা প্রসাশকের কার্যালয়ে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। সংশ্লিষ্ট দপ্তর গুলোর সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য