দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে অনলাইনে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট কালো বাজারীর মাধ্যমে বিক্রির অপরাধে তিনজন রবি এজেন্টকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়েেেছ।

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক দেবাংশু কুমার সিংহ গত বুধবার রাতে তাদেরকে এই সাজা প্রদান করেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলেন-রেলওয়ে বুক স্টলের প্রোপাইটর মজিবর রহমান (২০), সের্সাস নিউ কর্নারের প্রোপাইটর গোলাম মোস্তফা (২৪) ও মের্সাস মনি ষ্টোরের প্রোপাইটর সালাম সরকার ( ২৮)।

শহরের সুইহারী খালপাড়া এলাকার মো. রবিউল আউয়াল রবির লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে দিনাজপুর জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মো. নুরুজ্জামান গত বুধবার দুপুরে গ্রাহক সেজে দিনাজপুর রেলওয়ে চত্তরে অনলাইন এজেন্টের কাছে ট্রেনের টিকেট ক্রয়ের জন্য যান।

এ সময় তিনি পরপর তিনটি এজেন্টেরে কাছে টিকেটের দাম শুনেন। এজেন্টরা নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে ৫০ টাকা থেকে ৩‘শত টাকা পর্যন্ত দাম বেশী চান।

এসময় তিনি রেলওয়ে বুক স্টলের প্রোপাইটর মজিবর রহমান , সের্সাস নিউ কর্নারের প্রোপাইটর গোলাম মোস্তফা ও মের্সাস মনি ষ্টোরের প্রোপাইটর সালাম সরকারকে আটক করে রেলওয়ে সুপারিনটেনডেন্ট শেখ আব্দুল জব্বারের কক্ষে নিয়ে যান।

এ সময় তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ও ট্যাপ জব্দ করেন। পরে সকল তথ্য যাচাই বাছাই শেষে তাদেরকে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক দেবাংশু কুমার সিংহের আদালতে হস্তান্তর করেন।

বিচারক ১৮৯০ সালের ভোক্তা অধিকার আইন এবং ২০০৯ সালের ৪০ ধারায় মজিবরকে ৫ দিনের, গোলাম মোস্তফা ও সালাম সরকারকে ৩ দিনের কারাদন্ড প্রদান করেন।

রায়ে উল্লেখ্য করা হয়, দ্রুত সময়ের মধ্যে অর্থ উপার্জনের লক্ষে সাজা প্রাপ্তরা ট্রেনের টিকেট কালোবাজারে বিক্রি করে আসছিলেন। ফলে অনলাইনের মাধ্যমে জনগণের দ্বারপ্রান্তে ট্রেনের টিকেট পৌছে দেয়ার সরকারের অঙ্গীকার ভেস্তে যাচ্ছে।

এ ছাড়াও রবি‘র সঙ্গে এজেন্টের মাধ্যমে যে চুক্তিপত্র‘র কথা বলে তারা ট্রেনের টিকেট বিক্রি করছেন তার কোন বৈধতার অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

দিনাজপুর জিআরপি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোখলেছার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গত বুধবার রাতে সাজাপ্রাপ্তদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য