ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বামফ্রন্ট সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে যাচ্ছে বিজেপি, বুথ ফেরত দুটি জরিপে এমন আভাস পাওয়া গেছে।

বুধবার জানকিবাত-নিউজএক্স ও এক্সিসমাইইন্ডিয়ার দুটি জরিপের প্রকাশিত ফলাফলের বরাতে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি।

জরিপের এ ফলাফল সত্য হলে টানা পঁচিশ বছর পর ত্রিপুরায় বামফ্রন্ট সরকারের শাসনের অবসান ঘটবে। এতে কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপি ভারতের এ উত্তর-পূর্ব রাজ্যেও শক্ত ঘাঁটি গাড়বে বলে বিশ্লেষকদের ধারণা।

মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত মেঘালয় এবং নাগাল্যান্ডের বিধানসভাতেও বিজেপি আগের তুলনায় অনেক বেশি ভোট পাচ্ছে বলে বুথফেরত জরিপের বরাত দিয়ে জানিয়েছে এনডিটিভি।

জানকিবাত-নিউজএক্সের জরিপে বিজেপি ত্রিপুরায় প্রাপ্ত ভোটের ৫১ শতাংশ এবং ৩৫-৪০টি আসন পেতে পারে বলে ধারণা দেওয়া হয়েছে।

এক্সিসমাইইন্ডিয়ার জরিপে বলা হচ্ছে, প্রাপ্ত ভোটের ৪৯ শতাংশের পাশাপাশি ৪৪-৫০টি আসনে জিততে পারে বিজেপি-আইপিএফটি জোট। ৪০ শতাংশ ভোট পেয়ে বামফ্রন্ট পাবে ৯ থেকে ১৫টি আসন, ধারণা তাদের।

জানকিবাতের জরিপে বামপন্থিরা ভোট এবং আসন কিছুটা বেশি পাবে বলে ধারণা মিলেছে। ৪৫-৪৬ শতাংশ ভোট পেয়ে বামফ্রন্ট ১৪ থেকে ২৩টি আসনে জিতবে বলে বলছে তাদের বুথফেরত জরিপ।

দুটি জরিপেই কংগ্রেস এবং অন্যান্যরা সর্বোচ্চ ১১ শতাংশ ভোট পাবে বলে ধারণা দেওয়া হয়েছে; মিলতে পারে ৩টি আসনও।

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি বামপন্থিদের দীর্ঘদিনের ঘাঁটি ত্রিপুরায় বিধানসভার ৬০টি আসনের মধ্যে ৫৯টিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সিপিএমের প্রার্থী মারা যাওয়ায় একটি আসনের ভোট স্থগিত রাখা হয়।

বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া দেশের উত্তর-পূর্ব এ রাজ্যের ক্ষমতায় যেতে অর্থ ও গ্ল্যামারের তুমুল প্রদর্শনী ছিল বিজেপির পদ্মফুল মার্কাধারীদের।

অন্যদিকে বামপন্থিদের প্রচারের কেন্দ্রে ছিলেন সৎ, নির্লোভ হিসেবে দেশজুড়ে পরিচিত টানা পাঁচবারের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার; যার ভাবমূর্তির ওপর ভর করে ২০১৩ সালের নির্বাচনে ৬০টির মধ্যে ৫০টিতেই জিতেছিল বামফ্রন্ট।

জানকিবাত-নিউজএক্স ও এক্সিসমাইইন্ডিয়ার জরিপে বিজেপির বিপুল বিজয়ের সম্ভাবনা দেখা গেলেও সিভোটারের বুথফেরত জরিপে গেরুয়াজোটের সঙ্গে লাল পতাকার হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস দেওয়া হয়েছে।

তাদের জরিপে কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া (মার্কসবাদী) ৪৪ দশমিক ৩ শতাংশ ভোট পেয়ে ২৬ থেকে ৩৪টি আসন পেতে পারে বলে ধারণা দেওয়া হয়েছে। ৪২ দশমিক ৮০ শতাংশ ভোট পেয়ে বিজেপি জোট জিততে পারে ২৪ থেকে ৩২টি আসন।

৭ দশমিক ২০ শতাংশ ভোট পেয়ে কংগ্রেস বড়জোর দুটি আসনে জিততে পারে, বলছে তাদের জরিপ।

কংগ্রেসের হাতে থাকা মেঘালয় রাজ্যে ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) ২৩-২৭টি আসন পেয়ে বিজয়ী হতে যাচ্ছে বলে পূর্বাভাস জানকিবাত-নিউজএক্সের।

ক্ষমতাসীন কংগ্রেস ২১ শতাংশ ভোট পেয়ে ১৩ থেকে ১৭টি আসন পেতে পারে বলে ধারণা তাদের। বিজেপি জিততে পারে ৮ থেকে ১২টি আসনে।

এনপিপি ৩৯ শতাংশ এবং বিজেপি ১২ শতাংশ ভোট পেতে পারে, বলছে তাদের বুথফেরত জরিপ।

সিভোটারের বুথফেরত জরিপে কংগ্রেস ও এনপিপির মধ্যে তুমুল লড়াইয়ের ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। তারা বলছে, কংগ্রেস জিততে পারে ১৩ থেকে ১৯টি আসনে, অন্যদিকে এনপিপি পেতে পারে ১৭ থেকে ২৩টি।

নাগাল্যান্ডের ভোটে বিজেপি-এনডিপিপি জোট ক্ষমতাসীন এনপিএফকে পরাজিত করতে যাচ্ছে বলেও জানকিবাত নিউজএক্সের ধারণা। তাদের বুথফেরত জরিপে গেরুয়াজোট ২৭ থেকে ৩২টি আসন পাবে বলে ধারণা দেওয়া হয়েছে। এনপিএফ পেতে পারে ২০ থেকে ২৫টি আসন।

মঙ্গলবার এই রাজ্যে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। তিন রাজ্যেই ভোট গণনা শেষে আগামী ৩ মার্চ চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য