থাইল্যান্ডের সমুদ্রতীরবর্তী শহর পাতাইয়ায় নিজ দেশের লোকদের জন্য সেক্স ট্রেনিং কোর্স চালানো ১০ রাশিয়ানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

থাইল্যান্ডে বিনানুমতিতে কাজ করার অভিযোগে সোমবার তাদের গ্রেপ্তার করা হয় বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

পুলিশ জানিয়েছে, যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের মধ্যে রাশিয়ার নাগরিক অ্যালেক্স লেসলি রয়েছেন; স্বঘোষিত এই ‘সেক্স গুরু’ গত বছর রাশিয়ার পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়ে সংবাদপত্রের শিরোনাম হয়েছিলেন।

চলতি বছরের মার্চে রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

থাই পুলিশের ভাষ্যমতে লেসলির প্রকৃত নাম আলেকজান্ডার কিরিলোভ। কিন্তু ঘোষণা দিলেও লেসলি প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে রাশিয়ার কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন দাখিল করেননি।

পুলিশ জানিয়েছে, সেক্স ট্রেনিং কোর্স পরিচালনার জন্য নয়, অনুমতি ছাড়া থাইল্যান্ডে কাজ করার জন্য গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হবে।

পাশাপাশি গ্রেপ্তারদের মধ্যে একজনের বিরুদ্ধে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও থেকে যাওয়া এবং আরো তিনজনের বিরুদ্ধে পাসপোর্ট ছাড়া অবৈধভাবে থাইল্যান্ডে প্রবেশ করার অভিযোগ আনা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

১০ জনের এই দলটি পাতায়ার একটি হোটেলে কোর্সটি পরিচালনা করছিল। ৪০ জন রাশিয়ান নারী ও পুরুষ কোর্সটিতে অংশ নিচ্ছিল।

“এই কোর্সের জন্য তাদের ২০ হাজার বাথেরও বেশি দিতে হবে,” রয়টার্সকে বলেছেন পাতায়ার পুলিশ প্রধান আপিচাই ক্রোবপেত।

তিনি বলেছেন, “বিনানুমতিতে কাজ করার জন্য আমরা ১০ প্রশিক্ষকের সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনব। তারা তাদের স্বদেশবাসীদের যৌন শিক্ষা দেওয়ার জন্য এসেছে, কিন্তু কোর্সটির কোনো বৈধতা ছিল না।”

গ্রেপ্তারদের সাহায্য করার জন্য ব্যাংককের রাশিয়ার দূতাবাস থেকে কয়েকজন প্রতিনিধি পাতায়া গিয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

স্ট্রিপ ক্লাবসহ নৈশ আমোদপ্রমোদের জন্য পাতায়ার খ্যাতি আছে। এখানে রাশিয়ান মালিকানাধীন অনেক স্ট্রিপ ক্লাব আছে যেখানে রাশিয়ান পর্যটকদের আনাগোনা বেশি। শহরটির কেন্দ্রস্থলে রুশ ভাষায় লেখা অনেক সাইনবোর্ডও আছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য