নীলফামারীর ৩টি উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে ব্যাপক হারে শিলা বৃষ্টি হয়েছে। এতে টমেটো, তামাক, মরিচ সহ উঠতি ফসলের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষকরা। এছাড়া নীলফামারীর ৫টি উপজেলায় হালকা বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।

আজ সোমবার সকাল ৭টার দিকে হঠাৎ কালো মেঘে আছন্ন হয়ে পড়ে গোটা জেলা। এর কিছুক্ষণ পরে শুরু হয় বৃষ্টিপাত। কৃষি বিভাগ সূত্র মতে, নীলফামারী ৫টি উপজেলায় হালকা বৃষ্টিপাত হলেও নীলফামারী সদর, জলঢাকা ও কিশোরগঞ্জ উপজেলায় শিলা বৃষ্টি হয়েছে।

এর মধ্যে সদর উপজেলার রামনগর, টুপামারী, জলঢাকা উপজেলার খুটামারা, শিমলবাড়ী ও কিশোরগঞ্জ উপজেলার পুটিমারি, বড়ভিটা, রনচন্ডি ও সদর ইউনিয়নের ব্যাপকহারে শিলা বৃষ্টি হয়েছে।

সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের বাহালীপাড়া গ্রামের গোলাম মোস্তফা, কাউছার আহমেদ ও আবু হানিফা জানান বাহালীপাড়া, চৌধুরী বাজার, ডাঙ্গাপাড়া গ্রামে ব্যাপক হারে শিলা বৃষ্টি হওয়ায় ওইসব গ্রামের টমোটো, তামাক, মরিচ সহ উঠতি ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

বড় আকারের শিলা বৃষ্টিতে অনেকের টিনের ঘরের চালা ফুঁটো হয়েছে বলে তারা জানান। কিশোরগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার এনামুল হক জানান, উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে শিলাবৃষ্টি হওয়ায় তামাকের ক্ষতি হয়েছে।

নীলফামারী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবুল কাশেম আযাদ জানান, সোমবার সকালে নীলফামারীর ৫টি উপজেলায় ৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

এছাড়া তিনটি উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে শিলাবৃষ্টি হওয়ার অন্যান্য ফসলের তেমন ক্ষতি না হলেও তামাকের ক্ষতি হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য