আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধা সদর উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের গৃহবধূ জমিলা হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত খুনি স্বামীসহ সকল আসামীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও রাঙ্গামাটির বিলাইছড়িতে সেনাবাহিনী সদস্য কর্তক দুই মারমা বোনকে ধষর্ণ ও যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদে সোমবার দুপুরে শহরের ডিবি রোডে এক মানববন্ধনের কর্মসূচী পালন করে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট ও বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্র জেলা শাখা এই মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের জেলা সভাপতি শামীম আরা মিনার সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ নারীমুক্তি কেন্দ্র জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নিলুফার ইয়াসমিন শিল্পী, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের জেলা সাধারণ সম্পাদক পারমানন্দ দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহাবুব আলম মিলন, নির্যাতিত গৃহবধূ জমিলা খাতুনের মা মনোয়ারা খাতুন প্রমুখ।

বক্তারা সদর উপজেলার ঘাগোয়া ইউনিয়নের গৃহবধূ জমিলা হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত খুনি স্বামী জহুরুল হকসহ সকল আসামীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও রাঙ্গামাটির বিলাইছড়িতে সেনাবাহিনী সদস্য কর্তক দুই মারমা বোনকে ধষর্ণ ও যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদ জানান। বক্তারা আরও বলেন, ২১ ফেব্র“য়ারি রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি গ্রামে তল্লাসির নামে সেনাবাহিনী কর্তৃক মারমা বোনকে ধর্ষণের ঘটনা আদিবাসীসহ সারাদেশের বিবেকবান মানুষকে স্তমিত করেছে।

এর আগেও পার্বত্য চট্টগ্রামে আইন শৃংখলা বাহিনী কর্তৃক আদিবাসী নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের সুষ্ঠু তদন্ত হয়নি। তাই নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে ধর্ষক সেনা সদস্যদেরকে গ্রেফতার এবং বিচারের আওতায় আনার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান। এছাড়া সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে নারী-শিশু ধর্ষণ ও হত্যার বিরুদ্ধে গণ আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য