বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিপদাপন্ন মানুষের সহায়তায় নিয়োজিত ত্রাণকর্মীদের একের পর যৌন কেলেঙ্কারির খবর প্রকাশ নিয়ে আলোচনার মধ্যে এই তালিকায় যুক্ত হল আন্তর্জাতিক মানবিক ত্রাণ সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠান রেডক্রসের নাম।

যৌন কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে গত তিন বছরে তাদের ২৩ জন কর্মী চাকরি হারিয়েছেন বলে শুক্রবার জানিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দ্য রেডক্রস (আইসিআরসি)।

সংস্থাটির মহাপরিচালক ইভ ড্যাকোর্ড শুক্রবার বলেন, যৌনকর্মী ভাড়া করায় তাদের কাউকে কাউকে বরখাস্ত করা হয়েছে বা কেউ কেউ পদত্যাগ করেছেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “২০১৫ সাল থেকে আমরা ২১ জন কর্মীকে চিহ্নিত করেছি, যারা যৌনকর্মী ভাড়া করায় বরখাস্ত হয়েছেন বা অভ্যন্তরীণ তদন্তের সময় পদত্যাগ করেছেন। যৌন অপরাধে জড়িত সন্দেহভাজন অপর দুইজনের চুক্তি নবায়ন করা হয়নি।”

এ সংখ্যা জানানো তার জন্য ‘দুঃখজনক’ মন্তব্য করে আইসিআরসি মহাপরিচালক বলেছেন, প্রতিটি ঘটনায় যাথযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে এবং সেগুলো যাতে প্রকাশ করা হয় সে বিষয়টি নিশ্চিতে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আইসিআরসির ১৭ হাজারের বেশি কর্মী রয়েছে। যেসব দেশে যৌনবৃত্তি বৈধ সেখানেও কর্মীদের যৌনকর্মী ভাড়া করায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে সংস্থাটির।

এই মাসেই ত্রাণকর্মীদের যৌন কেলেঙ্কারির তথ্য প্রকাশে ধাক্কা খায় আন্তর্জাতিক ত্রাণ ও দাতব্য সংস্থাগুলো।

ভূমিকম্পবিধ্বস্ত হাইতিতে ২০১১ সালে ত্রাণ কাজের সময় অক্সফামের ভাড়া করা ভবনে সংস্থাটির কর্মকর্তাদের যৌনকর্মী ভাড়া করে ‘সেক্স পার্টি’ দেওয়ার কথা প্রকাশ হয় মাসের প্রথম দিকে।

ওই ঘটনার অভ্যন্তরীণ তদন্তের প্রেক্ষাপটে হাইতিতে সংস্থাটির কান্ট্রি ডিরেক্টর রোনাল্ড ভন হওয়ারমেরিনসহ (৬৮) সাতজন চাকরিচ্যুত হলেও অক্সফাম সে তথ্য চেপে গিয়েছিল বলে ব্রিটিশ দৈনিক টাইমসের এক অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে।

এর জের ধরে ওই ঘটনার দায় নিয়ে পদত্যাগ করেছেন অক্সফামের উপপ্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পেনি লরেন্স। বিষয়টি নিয়ে অক্সফামের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক গোল্ড্রিং এবং ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ক্যারোলিন থমসনকে গেল সপ্তাহে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে হয়েছে।

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশন, সংস্থা, তহবিল ও কর্মসূচি এবং তাদের বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের অংশীদাররাও যৌন নিপীড়ন ও যৌন অসদাচরণের কেলেঙ্কারিতে পড়েছে। যৌন কেলেঙ্কারির জেরে সর্বশেষ জাতিসংঘের এইচআইভি/এইডস বিষয়ক সংস্থার উপপ্রধানকে বিদায় নিতে হয়েছে। .

দাতব্য সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেনের প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব পালনকালে তরুণ নারী কর্মীদের সঙ্গে যৌন অসদাচরণের খবর প্রকাশের পর গত সপ্তাহেই ইউনিসেফের উপ নির্বাহী পরিচালকের পদ ছেড়েছেন জাস্টিন ফরসিথ।

রেডক্রসের মহাব্যবস্থাপক ড্যাকোর্ড বিবৃতিতে বলেন, ত্রাণ সংস্থাগুলো থেকে যৌন অসদাচরণের সাম্প্রতিক খবরের প্রেক্ষাপটে এ বিষয়ে একটি অভ্যন্তরীণ পর্যালোচনা করেছেন তারা।

শিশুদের ত্রাণ সহায়তা দানকারী সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল কর্মীদের বা সহযোগীদের মাধ্যমে যৌন নিপীড়ন বা শিশু হয়রানির ছয়টি ঘটনা নিশ্চিত করার পর শুক্রবার রেডক্রসের ওই বিবৃতি আসে।

ড্যাকোর্ড বলেন, “এই আচরণ যেসব মানুষ বা কমিউনিটিকে আমরা সেবা দিতে যাই তাদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা।

“এটা মানবিক মর্যাদা বিরোধী এবং তা প্রতিরোধে আমাদের আরও সতর্ক হওয়া উচিত ছিল।”

ত্রাণ কর্মীদের যৌন কেলেঙ্কারি নিয়ে সমালোচনার প্রেক্ষাপটে শুক্রবার ২২টি সংস্থা বলেছে, তারা ‘সত্যিই দুঃখিত’।

সেভ দ্য চিলড্রেন ও অক্সফামের মতো সংস্থাগুলোর প্রধান নির্বাহীদের স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে যাদের সহায়তার জন্য তাদের কার্যক্রম সেই জনগোষ্ঠীর সুরক্ষায় আরও পদক্ষেপ নেওয়ার অঙ্গীকার করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য