নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ শহর বাইপাস সড়কের বেহালদশা হয়েছে। সংস্কারের অভাবে সড়কটিতে ছোট বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে ডালিয়া হতে সৈয়দপুর চলাচলকারী যানবাহনগুলো শহরের মাঝপথ দিয়ে যাতায়াত করায় শহরের থানা মোড় থেকে ভূমি অফিস পর্যন্ত যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

শহরের প্রধান সড়ক শাহী রোডে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনাসহ পথচারীদের দুর্ভোগ বাড়ছে। সূত্রমতে, কিশোরগঞ্জ শহরের মাঝপথ দিয়ে যানবাহন চলাচলের চাপ কমাতে গদা উচাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে খেলুর বাড়ি পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার বাইপাস সড়ক গত ৫বছর পূর্বে নির্মাণ করা হয়। কিন্তু উপজেলা প্রকৌশল অফিসের দায়িত্ব অবহেলা ও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারের গাফিলতির কারণে দু’বছরের মধ্যে সড়কটি যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায়।

ফলে ডালিয়া হতে সৈয়দপুর ও তারাগঞ্জ হতে বড়ভিটা চলাচলকারী যানবাহনগুলো কিশোরগঞ্জ শহরের মাঝপথ দিয়ে যাতায়াত করায় প্রধান সড়কের থানা মোড় থেকে উপজেলা ভূমি অফিস পর্যন্ত প্রতিদিন যানজটের সৃষ্টি হয়। সংস্কারের অভাবে বাইপাস সড়কটিতে অসংখ্য খানা খন্দকের ফলে প্রতিনিয়ত ছোট খাটো দূর্ঘটনা ঘটছে।

ট্রাক চালক স্বপন মিয়া জানায়, খানা খন্দকে ভরা শহর বাইপাস সড়ক দিয়ে গেলে লোড ট্রাকের স্কেল ভাঙ্গাসহ উল্টে পাড়ার আশঙ্কা থাকে অপরদিকে শহরের ভিতর দিয়ে গেলে যানজটে পড়তে হয়। শহরের ওপর যানবাহনের চাপ কমাতে বাইপাস সড়কটি সংস্কার জরুরী।

বিশেষ করে বাইপাস সড়কের বেহালদশা সম্পর্কে অজানা রিক্্রা, ভ্যান, অটো ও ট্রাক চালকদের পড়তে হয় নানা ধরণের বিড়ম্বনায়। রিক্্রা ভ্যানের চাকা গর্তে পরে রিং, ষ্পোক ও এক্সেল ভেঙ্গে ভ্যান উল্টে প্রতিনিয়ত যাত্রীদের আহত হওয়ার ঘটনা ঘটছে।

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী কেরামত আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, রাস্তাটি সংস্কারের ষ্টিমেট প্রেরণ করা হয়েছে, চলতি অর্থ বছরে সংস্কার করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য