ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: গত শনিবার আনুমানিক পৌনে দুইটায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ৫ নং বালিয়া ইউনিয়ন কুমারপুরের বাধপাড়া বাঁধে মাছ ধরার সময় খোশবাজার মাদ্রাসার দাখিল ৯ম শ্রেণির ছাত্র তৈমুর (১৪) কে গোখরো সাপ দংশন করলে সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পরে এবং মুখ দিয়ে ফেনা চলে আসে ।

এ অবস্হায় স্থানীয় লোকজন তাকে দ্রূত ঠাকুরগাঁওয়ে নিয়ে এলে রাইসা ফার্মেসীর স্বর্তাধিকারী ইউপি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জুলফিকার আলী ভুট্টোর সহযোগিতিায় আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি করা হয়।

পরে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ তোজাম্মেল হক সাহেবের শরণাপন্ন হলে তিনি এন্টি স্ন্যাক ভ্যাকসিন পুশের মাধ্যমে তৈমুরের চিকিৎসা শুরু করেন । তিনি প্রায় দেড় ঘন্টা যাবত চিকিৎসারত রোগির পাশে দাঁড়িয়ে থেকে নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে ফিরিয়ে আনতে সফল হয়েছেন।

তাঁর এই সাহসিকতা চিকিৎসা প্রয়োগ ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে এক নজির স্হাপন করলেন।এর ফলে ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষ আর একটি সেবার সুযোগ পেল।

তৈমুর পাইতকা পাড়া,জলঢাকা মৃত – আনছার আলীর পুত্র।সে পড়াশুনার জন্য বাধপাড়ায় তোফাজ্জল হোসেনের বাড়িতে লজিং থাকে।

সে এখন মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি আছে । রাতে মুঠো ফোনে ভুট্টো চৌধুরী ও রোগীর বড় ভাইয়ের সাথে কথা বলে জানা যায়,সে এখন অনেকটাই সুস্থতাবোধ করছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য