আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধা সদর উপজেলার হাট-ল²ীপুর বাজারের দরিদ্র বাদাম ও চানাচুর বিক্রেতা জামাত আলী মাসোহারা ও নেশার টাকা দিতে না পারায় সন্ত্রাসী আব্দুর রউফ দোকান ভাংচুর ও মারপিট করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযোগে জানা গেছে, সদর উপজেলার কুপতলা ইউনিয়নের গোডাউন বাজারের দরিদ্র জামাত আলী প্রায় ২৫ বছর ধরে ল²ীপুর বাজারের গর“ হাটির পাশে ফুটপাতে বাদাম, চানাচুর ও তিলের খাজা বিক্রি আসছিল।

ফুটপাতে ব্যবসা করার কারণে একই উপজেলার হাট-লক্ষীপুর এলাকার চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী প্রকৃতির আব্দুর রউফকে নেশা করার জন্য মাসোহারা হিসেবে প্রত্যেক মাসে ২শ’ থেকে ৩শ’ টাকা করে চাঁদা দিতে হতো। উক্ত টাকা কোন মাসে দিতে না চাইলে দোকান তুলে দেয়া হবে বলে নানা ধরণের হুমকি দিতো। ফলে প্রত্যেক মাসে জামাত আলী আব্দুর রউফকে ২শ’ থেকে ৩শ’ টাকা করে দিচ্ছিল।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার আব্দুর রউফ নেশাগ্রস্ত হয়ে জামাত আলীর দোকানে এসে অতিরিক্ত ২শ’ টাকা চাঁদা দাবি করে। তখন জামাত আলী বলে এইমাত্র দোকান খুলেছি টাকা নাই। সাথে সাথে আব্দুর রউফ দরিদ্র জামাত আলীর দাঁড়ি ধরে এলোপাথারি চর থাপ্পর মারে এবং লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দেয়।

এছাড়া দোকানে রাখা বাদাম ও চানাচুরগুলো মাটিতে ফেলে দিয়ে খুন জখমের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চলে যায়। ফলে জামাত আলী ভয়ে নানা উৎকণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। এ ঘটনায় জামাত আলী সদর থানায় ১৬ ফেব্র“য়ারি শুক্রবার সন্ধ্যায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য