কাহারোল (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাহারোলে ১৩ জন জুয়ারু গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ১৪ ফেব্রুয়ারি’১৮ ইং তারিখে উপজেলার ১নং ডাবোর ইউনিয়ন এলাকায় মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ডিউটি করা কালে রাত্রি আনুমানিক ১০ ঘটিকায় সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, কাহারোল সার্কেল, দিনাজপুর মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানিতে পারেন যে, ১নং ডাবোর ইউনিয়নের জয়নন্দ হাট বাজারাস্থ ট্রাক ও ট্যাংকলড়ী শ্রমিক ইউনিয়ন (২৪৫নং) অফিস কক্ষে তাসের (কার্ড) মাধ্যমে প্রকাশ্য জুয়ার আসর বসিয়াছে।

উক্ত সংবাদ পাইয়া উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, কাহারোল সার্কেলের নেতৃত্বে সঙ্গীয় অফিসার এস,আই মোঃ তাওহীদুল ইসলাম, এ,এস,আই মোঃ হাসানাত আব্দুল হাই, মোঃ আব্দুল কাদের ও সঙ্গীয় ফোর্স সহ জয়নন্দ বাজারস্থ শ্রমিক ইউনিয়ন অফিস কক্ষে রাত্রি আনুমানিক ১১ ঘটিকার সময় পৌছা মাত্র আসামীগণ পুলিশের উপস্থিতি টের পাইয়া জুয়ার আসর থেকে পালানোর চেষ্টা করলে আসামীদেরকে সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সের সহায়তায় জুয়ার আসর থেকে জুয়া খেলার মালামাল সহ হাতে-নাতে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতারা হলেন জেলার কাহারোল উপজেলার চামদুয়ারী গ্রামের ১। অমৃত কুমার রায় (৩৭), পিতা-সুধির চন্দ্র রায়, ২। মোঃ হবিবর রহমান (৫৩), পিতা-মৃতঃ এমাজ উদ্দীন, ৩। মোঃ শরিফ হোসেন (৩০), পিতা-মোঃ জয়নদ্দীন, সর্ব সাং- চামদুয়ারী, ৪। মোঃ তরিকুল ইসলাম (৩২), পিতা-মৃতঃ এনামুল হক, সাং- তেঘরা, ৫। তরনী কান্ত রায় (৪০), পিতা-শ্রী চন্দ্র কান্ত রায়, সাং- জোতমুকুন্দপুর, ৬। শ্রী অনাথ চন্দ্র রায় (৪০), পিতা-মৃতঃ টংক নাথ রায়, ৭। শ্রী সত্যেন্দ্র নাথ রায় (৪৫), পিতা-মৃতঃ সুরেন্দ্র নাথ রায়, ৮। মোঃ আব্দুল মালেক (৪৫), পিতা-মৃতঃ পশিরদ্দীন সরকার, ৯। আনোয়ার সাদাৎ (৩৫), পিতা-মৃতঃ বাছান মন্ডল, ১০। মোঃ আমিনুল ইসলাম (৪০), পিতা-মোঃ মাহাতাব উদ্দীন, ১১। মোঃ আনোয়ার হোসেন (৪৩), পিতা-মৃতঃ খয়রাত আলী সরকার, সর্ব সাং- ডাবোর, ১২। শ্রী মৃত্যুঞ্জয় রায় (৪২), পিতা- শ্রী মহেন্দ্র নাথ রায়, সাং- শংকরপুর ও ১৩। শ্রী সঞ্জয় রায় (জাপান-২৫), পিতা- শ্রী রঞ্জিত কুমার রায়, সাং- শংকরপুর। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কাহারোল থানা ইনচার্জ মোঃ আইয়ুব আলী।

আসামীদের বিরুদ্ধে কাহারোল থানায় ১৯৬৭ সালের প্রকাশ্য জুয়া আইন এর ৪ ধারা অনুযায়ী মামলা দায়ের করেছেন পুলিশ। মামলা নং-১১, তারিখ- ১৫-০২-২০১৮ইং। আসামীদের কোটে প্রেরণ করেছেন কাহারোল থানা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য