আখতারুজ্জামান, ঠাকুরগাঁও থেকে: ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে মুনছুরা আক্তার (২২) নামের এক গৃহবধুকে ৩ দিন ঘরে আটকে রেখে নির্যাতন নিপীড়ন শেষে মুখে বিষ ঢেলে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গৃহবধুর মিরাজুল ইসলাম নামে ৩ বছর বয়সের এক শিশু রয়েছে। বুধবার বিকাল ৫টার সময় বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ভানোর ইউনিয়নের কলন্দা করিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত মুনছুরা ভানোর ইউনিয়নের কলন্দা করিয়া গ্রামের মাসুদ রানা অরফে র“বেলের স্ত্রী। এ ঘটনায় গৃহবধুর স্বামী র“বেল(২৭) ও তার বাবা তফিজুল ইসলাম(৫২) কে আটক করেছে পুলিশ।

গৃহবধুর মা রজিনা বেগম ও ফুপাতো ভাই আলমগীর অভিযোগ করে বলেন, র“বেল ও তার পরিবারের লোকজন দীর্ঘদিন ধরে মুনছুরা বেগমকে মারপিটসহ বিভিন্ন প্রকার অত্যাচার করে আসছিল। গত ৩ দিন ধরে তাকে ঘরে বন্দি করে রেখে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দেয় এবং আমাদের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রাখে। ‘ বুধবার বিকালে এক প্রতিবেশি মোবাইল ফোনে আমাদের জানালে আমি ছুটে এসে দেখি যে, মেয়ের লাশ বারান্দায় পড়ে রয়েছে। বাড়ীর সকল দরজায় তালাবন্ধ, লোকজন কেউ নেই।’

মেয়ের চাচা লাবু হোসেন বলেন, প্রায় সময় গৃহবধুর স্বামীর পরিবারের লোকজন তার উপর অত্যাচার করতো। আমিসহ মুনছুরা আক্তারের পরিবারের লোকজন সেই ঝগড়ার মীমাংসা করে গেছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মধুসুদন বলেন, ‘গৃহবধু মারা গেছে শুনে জেনে আমি পরিষদ থেকে এখানে এসেছি, এর বেশি কিছুই জানিনা। ভানোর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহাব সরকার বলেন, আমি গৃহবধুর মৃত্যুর কথা শুনে থানায় ফোনে জানিয়েছি।

বালিয়াডাঙ্গী থানার এসআই আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, গৃহবধুর স্বামী ও তার শ্বশুড়কে আটক করা হয়েছে।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান বলেন, লাশ দুটো উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পেলে পুলিশ তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া নেবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য