আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট থেকে: ঋতুর পরিক্রমায় শীত চলে গেছে, এসেছে ঋতুরাজ বসন্ত। ভোরের আবছা অন্ধকারের ঘোর কাটার আগেই লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা উত্তরবাংলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের মাঠ প্রাঙ্গণে বসন্ত বরণে মিলিত হয় শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। বাসন্তী রঙের শাড়ি, হলুদ রঙের পাঞ্জাবি আর রঙ-বেরঙেয়ের ফুলের সাজসজ্জা উৎসব প্রাঙ্গণকে নানামাত্রিকতায় বর্ণিল করে তোলে।

প্রিয়জনের হাত ধরে আসা মানুষগুলো বসন্ত উৎসবের গানে মেতে ওঠে। মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) উত্তরবাংলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বসন্ত উদযাপন পরিষদ আয়োজিত উৎসবের এক একটি গান মনে করিয়ে দিচ্ছিল বাঙালীর হাজার বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে। শুরুতেই দেশজ বাদ্যযন্ত্র ‘সারেঙ্গী’ পরিবেশন করেন। দেশাত্ববোধ গান গিয়ে দর্শক মাতান কালচারাল একাডেমীর শিক্ষার্থী প্রিংয়কারী, গ্রামছাড়া ওই রাঙা মাটির পথ আমার মন ভুলায় রে।

ওরে কার পানে মন হাত বাড়িয়ে লুটিয়ে যায় ধুলায় রে।। তারপর কালচারাল একাডেমীর শিক্ষার্থীরা গোপ রাগ বাসন্তী পরিবেশন করে জানান দেন উৎসবটি বসন্তের। এরপর একে একে চলে বসন্ত বন্দনার বিভিন্ন পরিবেশনা। কালচারাল সংগীত একাডেমীর শিক্ষিকা সুচিত্র সেনের পরিচলনায় ‘ওরে আয়রে…’ গানের সঙ্গে সমবেত সঙ্গীত পরিবেশনে অংশ নেন শিল্পীরা।

‘তোমার হাওয়ায় হাওয়া খুলেছে দ্বার, দক্ষিণ হাওয়ায় খুলেছে দ্বার…’ গানে সমাবেত নৃত্য পরিবেশন করেন উত্তরবাংলা কলেজের কালচারাল একাডেমীর শিক্ষার্থীরা। একক অভিনয় করেন উত্তরবাংলা কলেজের কালচারাল একাডেমীর শিক্ষার্থী পুষ্পিতা রায়,বাঁশ বাগানের মাথার উপর চাঁদ উঠেছে ওই,মাগো আমার শোলক-বলা কাজলা দিদি কই? আসলেই একজন মা তার সন্তাকে কিভাবে শান্তনাদেন বেদনাময় হৃদয়ে তাঁর এই একক অভিনয় গুণীজনদের মুগ্ধ করে তুলেন। এ যেন সত্যি সত্যি মা।

এভাবে পুরো অনুষ্ঠানকে মাতিয়ে তুলে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা। উক্ত বসন্তবরন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উত্তরবাংলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ এএসএম মনওয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, ইংলিশ এন্ড আইটি প্রগামের প্রজেক্ট ডিরেক্টর আইরিন গ্রাহাম।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিতি ছিলেন, গভর্নিং বডির সভাপতি নজরুল হক মতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খালেকুজ্জামান হেলাল, ইংরেজী প্রভাসক নন্দিতা রায়, ইংরেজী প্রভাসক সুবাষ রায়, বাংলা প্রভাসক শাদাৎ হোসেন রুবেল, সমাজবিজ্ঞানের প্রভাসক জয়নুল আবেদীন, রাষ্টবিজ্ঞানের প্রভাসক শাহ আলম, রাষ্টবিজ্ঞানের প্রভাসক আব্দুল হাকিমসহ শিক্ষক -শিক্ষিকা, লেখক, শিল্পী, সাংবাদিক, শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য