প্রণব সেনের এক সময় তার বিশাল জমিদারি ছিল। এখন তার বিত্ত, ক্ষমতা কিছুই নেই। কালের বিবর্তনে তার সবকিছু কোম্পানির কাছে বাঁধা পড়ে আছে। তার মেয়ে অদিতি সুন্দরী সুশিক্ষিতা।

গোঁড়ামির বেড়াজালের কারণে বার বার তার বিয়ে ভেঙ্গে যায়। শহর থেকে বড় ব্যবসায়ী প্রদীপ মুখার্জি আসে জমিদার বাড়িতে। তার সঙ্গেই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে অদিতির। কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়ায় নব্য পয়সা ওয়ালা বিমল।
এমন একটি প্রেমের গল্পেই নির্মিত হয়েছে নাটক ‘শেষের চিঠি’। লিব্রত কুমারের রচনা ও আল আমিন বিপ্লব পরিচালনায় এটি তৈরি হয়েছে।

নাটকে প্রধান তিনটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাইসুল ইসলাম আসাদ, শ্যামল মওলা ও মৌসুমী হামিদ।
পরিচালক বিপ্লব জানান, ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে মানিকগঞ্জের বেতালি জমিদার বাড়িতে এর দৃশ্যয়ন হয়েছে। নাটকটি একটি বেসরকারি টিভির জন্য নির্মিত।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য