ভারতের রাষ্ট্রীয় বিমান পরিবহন এয়ার ইন্ডিয়াকে দিল্লি থেকে তেল আবিব যেতে নিজেদের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব।

ইসরায়েলি দৈনিক হারেৎজের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

তবে ভারতের বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রণালয় ও এয়ার ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ খবরটি নিশ্চিত করেনি বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

এয়ার ইন্ডিয়ার এক মুখপাত্র এনডিটিভিকে জানান, মার্চ থেকে সপ্তাহে তিনবার দিল্লি-তেল আবিব রুটে ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি চেয়ে তারা বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করেছিলেন।

অনুমতির বিষয়ে সিদ্ধান্ত এখনো অপেক্ষমান বলে জানিয়েছেন তিনি।

এয়ার ইন্ডিয়া দিল্লির ইন্দিরা গান্ধী ও তেল আবিবের বেন গুরিয়ন বিমানবন্দরে স্লটের জন্যও অপেক্ষা করছে বলে এয়ার ইন্ডিয়ার আরেক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

অনেক আরব ও ইসলামি দেশ ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেয়নি। এ কারণে তেল আবিবমুখী উড়োজাহাজগুলো ওই দেশগুলোর আকাশসীমা ব্যবহার করতে পারে না।

সৌদি আরবের অনুমতি পেলে এয়ার ইন্ডিয়া অল্প দূরত্ব অতিক্রম করে আহমেদাবাদ, মাস্কট, সৌদি আরব হয়ে তেল আবিব পৌঁছাতে পারবে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। এর ফলে দিল্লি ও তেল আবিবের মধ্যে বিমান দূরত্ব আড়াই ঘণ্টায় নেমে আসবে এবং তেল খরচ বাঁচবে।

এখন ইসরায়েলের ইওয়ান এওয়ানের বিমানগুলো তেল আবিব থেকে লোহিত সাগর ও গাল্ফ অব এডেনের ওপর দিয়ে উড়ে এসে ঘুর পথে সাত ঘণ্টায় ভারতের মুম্বাই পৌছায়। অনুমতি না থাকায় ওই বিমানগুলো সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইরান, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহার না করে অনেকটা ঘুর পথে ভারতে ঢোকে।

ভারতের এ রাষ্ট্রীয় পরিবহনটিকে তেল আবিবে ফ্লাইট পরিচালনার জন্য এককালীন সাড়ে সাত লাখ ইউরো অনুদান দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল ইসরায়েলের পর্যটন মন্ত্রণালয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য