দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে দিনাজপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জিএম সন্তোষ কুমার সাহা ঘুষ না পেয়ে বাড়ির নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনায় উপজেলার খালিপপুর গ্রামের ভুক্তভোগী হযরত আলী নামের এক ব্যক্তি বুধবার নবাবগঞ্জ সহকারি জজ আদালতে মামলা দায়ের করেছেন মামলা নং – ১৮/২০১৮। বিচারক জিএমের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন।

মামলার এজাহার এবং ভুক্তভোগি পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতবছর ২৭ নভেম্বর নবাবগঞ্জ উপজেলার খালিপুর গ্রামে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়। এর একদিন পর হঠাৎ করেই পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন এসে হযরত আলীর বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে মিটার খুলে নিয়ে যায়। হযরত আলী মিটার খোলার বিষয়ে জানতে চাইলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লোকজন জিএম সন্তোষ কুমারের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

পরে হযরত আলী জিএমের সাথে দেখা করতে গেলে জিএম সন্তোষ কুমার সাহা তাঁকে জানায় যে, অনেক গুরুত্বপূর্ণ এলাকা বাদ দিয়ে তাঁদের গ্রামে বিদ্যুৎ দেওয়া হয়েছে। একারনে হযরত আলীর ছেলে মঞ্জুরুল জিএমকে খুশি করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সংযোগ দেওয়ার পর কোন যোগাযোগ করেনি। পঞ্চাশ হাজার টাকা না দিলে তাঁদের বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবেনা বলে জানান জিএম সন্তোষ কুমার সাহা।

এরপর ভুক্তভোগি হযরত আলী এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যুতায়ন চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগও করেন। কিন্তু এরপরও কর্তৃপক্ষ বিদ্যুৎ সংযোগ না দিলে তিনি বাধ্য হয়ে মামলা করেন বলে জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জিএম সন্তোষ কুমার সাহা বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে হযরতের বাড়ি থেকে মিটার খুলে নিয়ে আসার সত্যতা স্বীকার করেন। তবে কোন আইনে মিটার খুলে নিয়ে আসলেন এ বিষয়ে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য