কাহারোল (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলার চাষীরা এবার চলতি মৌসুমে গমের আবাদ করেছেন ব্যাপক হারে। ভাল ফলন ও দাম ভাল পাওয়ায় প্রতি বছর দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গমের আবাদ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আর চাষীরা জানান, গম চাষে উৎপাদন খরচ অন্যান্য ফসলের তুলনায় কম। কাহারোল উপজেলার মাটি ও গম চাষে উপযোগী। তার সঙ্গে আবহাওয়া অনুকুল থাকলে গমের ফলন ভাল পাওয়া যায়। সেই কারনে উপজেলার চাষীরা গমের আবাদের প্রতি ঝুকেছেন বলে জানান কৃষকেরা।

কাহারোল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের তথ্য অনুযায়ী উপজেলায় জমির পরিমাণ ৩৬ হাজার হেক্টর এর মধ্যে চলতি মৌসুমে গম আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ১ হাজার ৭৮৫ হেক্টর। আর গম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে হেক্টর প্রতি গড়ে তিন দশমিক পয়তাল্লিশ টন। উপজেলায় ৫ শত অগভীর নলকুপ গম উৎপাদনে সেচ কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে।

কাহারোল উপজেলার নয়বাদ গ্রামের চাষী অধির চন্দ্র রায় ও পুলিন চন্দ্র রায় জানান, উপজেলার মাটি গম চাষে উপযোগী। ভাল ফলন ও দাম পাওয়ায় কাহারোল উপজেলার চাষীরা বেশি জমিতে গম চাষ করেছেন। তবে চলতি মৌসুমে বারি, ২৬, ২৭, ২৮, ২৯ ও ৩০ জাতের গম আবাদ হয়েছে বেশি। এসব বীজ বিএডিসি দিনাজপুরের পক্ষ থেকে সরবরাহ করা হয়েছে। তাছাড়া অনেক চাষী গম উৎপাদনের ক্ষেত্রে গোবর ও জৈব সার ব্যবহার করেছে। এতে বেশি ফলন পাওয়া যায়।

৪নং তাড়গাঁও ইউপি’র পানিগাঁও গ্রামের কৃষক হাসান জানান, আবহাওয়া অনুকুল থাকলে আমাদের কাহারোল উপজেলায় গমের ফলন ভাল হয়। তাছাড়া অন্য ফসলের তুলনায় গমের বাজার মূল্য ভাল পাওয়া যায়। ফলে কয়েক বছর ধরে কাহারোল উপজেলার চাষীরা গম আবাদের দিকে ঝুকেছেন।

কাহারোল উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ শামিম জানান, গম আবাদে খরচ কম, আর আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এই কাহারোল উপজেলায় গম আবাদ বেশি হচ্ছে। তাছাড়া সারাদেশের মধ্যে কাহারোল উপজেলায় ঠান্ডা ও কুয়াশা বেশি পড়ে। ফলে এই আবহাওয়ায় গমের ফলন ভাল হয় বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য