12 15 18

শনিবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

Home - জেনে রাখুন - দূরে থাকুক মাইগ্রেন

দূরে থাকুক মাইগ্রেন

মাথাব্যথা এমনিতেই যথেষ্ট বিরক্তিকর এবং কষ্টকর। আর সে ব্যথা যদি হয় মাইগ্রেনের, তাহলে তো আর কথাই নেই। এ ব্যথার ছোবল থেকে রেহাই পাওয়া প্রসঙ্গে গবেষকরা জানিয়েছেন, নয় ধরনের খাবার খাদ্যাভাস থেকে বাদ দিলে মাইগ্রেন আক্রমণ কমে আসতে পারে অনেকটাই।

App DinajpurNews Gif

চলুন জেনে নেয়া যাক গবেষকদের উল্লেখিত ঐ নয় ধরনের খাবার সম্পর্কে-

১.কফি

গবেষণায় জানা গেছে, কফিতে বিদ্যমান ক্যাফেইন থেকে মাইগ্রেনের ব্যথা শুরু হতে পারে। আর তাই মাইগ্রেনের হাত থেকে রেহাই পেতে খাদ্যাভাস থেকে কফি বাদ দেওয়ার পরিামর্শ দিয়েছেন তারা।

২.কৃত্রিম মিষ্টির খাবার

বাড়তি ওজন কমাতে বা ওজন ঠিক রাখতে অনেকেই কৃত্রিম মিষ্টি দিয়ে তৈরি খাবার খেয়ে থাকেন। কিন্তু আপনার যদি মাইগ্রেনের সমস্যা থেকে থাকে, তাহলে এ ধরনের খাবার খাদ্যাভ্যাস থেকে বাদ দেওয়াই উত্তম। কারণ এতে বিদ্যমান আসপার্টেম উপাদানটি মাইগ্রেন ব্যথা উসকে দেয় বলেই জানিয়েছেন গবেষকরা।

৩.মদ্যপান

মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে, দূরে থাকুন মদ্যপান থেকে। গবেষকদের তথ্য অনুযায়ী, মদ্যপান মস্তিষ্কের স্নায়ুতে আঘাত করে মাইগ্রেনের ব্যথাতে বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে।

৪.চাইনিজ ফাস্ট ফুড

নুডলস খেতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। কিন্তু মাইগ্রেনের সমস্যা থেকে থাকলে, কষ্ট হলেও খাদ্যাভাস থেকে নুডলসের মতো চাইনিজ ফাস্ট ফুডগুলো বাদ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা। কারণ চাইনিজ ফাস্ট ফুডগুলোতে বিদ্যমান মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট উপাদানটি হরমোনাল ইমব্যালান্স সৃষ্টি করতে পারে, যা মাইগ্রেনে আক্রমণে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

৫.আপেল

বিষয়টি অবাক হওয়ার মতো হলেও, আপেল মাইগ্রেন আক্রমণে ভূমিকা রাখে বলেই জানিয়েছেন গবেষকরা। রোজ আপেল খেলে, এতে বিদ্যমান ট্যানিস উপাদানটি মাইগ্রেন ব্যথা উসকে দেয় বলেও জানিয়েছেন তারা।

৬.নোনতা খাবার

মাইগ্রেন সমস্যা থাকলে নোনতা খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন। নোনতা খাবার হাইপারটেনশেন তৈরি করে, আর হাইপারটেনশন মাইগ্রেন আক্রমণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

৭.চিজ

মাইগ্রেন আক্রমণ এড়াতে পিজ্জা, পাস্তা ধরনের চিজ দিয়ে তৈরি খাবার থেকে দূরে থাকুন। কারণ চিজে বিদ্যমান টেরামাইন উপাদানটি মাইগ্রেন আক্রমণে সাহায্য করে বলেই জানিয়েছেন গবেষকরা।

৮.পিকল্ড ফুড

চিজের মতো পিকল্ড অর্থাৎ আচার জাতীয় খাবারে রয়েছে টেরামাইন উপাদানটি। ফলে মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে এড়িয়ে চলুন আম, শশার মতো পিকল্ড ফুডগুলো।

৯.সংরক্ষিত মাংস

সংরক্ষিত মাংস গ্রহণের ফলে আক্রান্ত হতে পারেন মাইগ্রেনের ব্যথায়। এতে বিদ্যমান নাইট্রিক এসিডের ফলে হতে পারেন মাইগ্রেন আক্রমনের শিকার। আর তাই এ ধরনের খাবার এড়িয়ে চলার পরামর্শই দিয়েছেন গবেষকরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য