রাশিয়াকে ঠেকানোর কথা বলে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর নতুন ও অপেক্ষাকৃত ছোট আকৃতির পারমাণবিক বোমা তৈরির পরিকল্পনার নিন্দা জানিয়েছে মস্কো। যুক্তরাষ্ট্রের এ পদক্ষেপকে ‘সংঘাতপূর্ণ’ ও ‘যুদ্ধের উসকানি’ বলে উল্লেখ করেছে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। রাশিয়ার নিরাপত্তা রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ারও হুঁশিয়ারি দিয়েছে তারা। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি খবরটি জানিয়েছে।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগনের নীতি নির্ধারণী নথি বলে পরিচিত নিউক্লিয়ার পসচার রিভিউ (এনপিআর) থেকে জানা যায়, রাশিয়াকে মোকাবিলার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক অস্ত্রে বৈচিত্র্য আনা এবং নতুন ধরনের ছোট আকারের পারমাণবিক বোমা তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে মার্কিন সেনাবাহিনী। এনপিআর-এ বলা হয়,মার্কিন সেনাবাহিনী রাশিয়াকে মোকাবিলায় উদ্বিগ্ন কারণ যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক অস্ত্র আকারে অনেক বড়। ফলে এর ব্যবহার সমস্যাপূর্ণ। এসব অস্ত্র এখন আর আগের মতো কার্যকর না। ছোট আকারের পারমাণবিক বোমা প্রস্তুত করা গেলে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে এনপিআর যুক্তি তুলে ধরে।

মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রস্তাবটির কথা প্রকাশ্যে আসার ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের মাথায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে রাশিয়া। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ‘গভীর হতাশা’ প্রকাশ করে ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘নথিটির প্রথম পাঠেই মনে হয়েছে এটি সংঘাতপূর্ণ এবং রাশিয়াবিরোধী।’ রাশিয়ার অভিযোগ, এর মধ্য দিয়ে যুদ্ধের উসকানি দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

আকারে ছোট ও কম ক্ষমতাসম্পন্ন পারমাণবিক বোমার শক্তি থাকে ২০ কিলো টনের কম। যদিও এই বোমার ধ্বংসাত্মক ক্ষমতা ভয়াবহ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ দিকে জাপানের নাগাসাকি শহরে একই ধরনের বিস্ফোরণ ক্ষমতাসম্পন্ন পারমাণবিক বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছিল,তাতেই ৭০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছিলেন।

মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রস্তাবে দাবি করা হয়, যতোই সীমিত হোক না কেন পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার যে গ্রহণযোগ্য নয় তা রাশিয়াকে অনুধাবন করাতে এ কৌশল কাজে দেবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য