আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার চন্দিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির ছাত্র সাজ্জাদ হোসেনকে জোর পূর্বক অপহরণ করে নিয়ে একটি ঘরে আটক করে রাখে। পরে তাকে বেধরক মারপিট করে হত্যার অপচেষ্টা চালায় সন্ত্রাসীরা। এব্যাপারে ৩০ জানুয়ারি মঙ্গলবার ফুলছড়ি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, জমিজমা নিয়ে পূর্ব শত্র“তার জের ধরে একই উপজেলার ধনারপাড়া গ্রামের কুদ্দুস আলীর ছেলে রবি, রানা, শফি এবং সোনা মিয়ার ছেলে জাহিদ, রবির স্ত্রী মাছুদা বেগম, চন্দিয়ার জাহিদের স্ত্রী লাকি বেগমসহ তাদের সহযোগি সন্ত্রাসীরা চন্দিয়া নয়াবাড়ি গ্রামের দরিদ্র শ্রমজীবি সাজু মিয়ার ছেলে সাজ্জাদকে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা থেকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে গিয়ে রবি মিয়ার ঘরে আটক করে রাখে। পরে উক্ত সন্ত্রাসীরা সাজ্জাদকে বেধরক মারপিট করে হত্যার অপচেষ্টা চালায়। এসময় সাজ্জাদের চিৎকারে গ্রামবাসিরা এগিয়ে এসে সাজ্জাদকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে এবং ফুলছড়ির উদাখালী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করে।

এব্যাপারে মামলা দায়ের করা হলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করেনি। এতে সন্ত্রাসীরা আরও বেপোরোয়া হয়ে উঠেছে এবং তাদের বাড়ির সামনের রাস্তা দিয়ে সাজু মিয়া ও তার পরিবার-পরিজনদের পথ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এছাড়া থানার মামলা প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য সাজু মিয়াকে নানাভাবে হত্যার হুমকিসহ হয়রানীমূলক মিথ্যা মামলা দায়েরের হুমকি দিয়ে আসছে। ফলে সাজু মিয়া ও তার পরিবার-পরিজন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য