বলিউড অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর বলেছেন, ‘ধর্ষিতা হওয়ার পরেও নারীদের বেঁচে থাকার অধিকার আছে। কিন্তু বনশালীর ছবির শুরুতে সতী কিংবা জহরের প্রতি সমর্থন না থাকার কথা বলার পরেও, দু’ঘণ্টা ৪৫ মিনিট ধরে রাজপুতদের সম্মান ও নারীদের সাহসিকতা তুলে ধরা হয়েছে।

দেখানো হয়েছে, সম্মাননীয় রাজপুত নারীরা স্বামী ছাড়া অন্য পুরুষদের যারা ঘটনাচক্রে মুসলিম স্পর্শের বদলে হাসিমুখে আগুনে পুড়ে মৃত্যু বেছে নিচ্ছেন। নারীদের মর্যাদা ও পবিত্রতা শুধু যৌনাঙ্গে থাকে না।’

পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালীর বিরুদ্ধে ‘পদ্মাবৎ’ সিনেমায় সতী ও জহর ব্রতকে ‘মহিমান্বিত’ করা হয়েছে অভিযোগ করে তিনি এই মন্তব্য করেছেন।

বনশালীর উদ্দেশে লেখা খোলা চিঠিতে স্বরা ভাস্কর লিখেছেন, স্বাধীন ভারতে ভারতীয় সতী প্রতিরোধ আইনে (১৯৮৮) বলা হয়েছে, সতী প্রথাকে মহিমান্বিত করা এবং এক্ষেত্রে সাহায্য বা পৃষ্ঠপোষকতা দণ্ডনীয় অপরাধ।

আপনি হঠকারীভাবে এই ধরনের অপরাধকে গৌরবান্বিত করেছেন। এর জবাব দিতে হবে। টিকিট কেটে আপনার ছবি দেখতে যাওয়া দর্শক হিসেবে আপনি কীভাবে এবং কেন এটা করলেন? সেই জবাব চাওয়ার অধিকার আমার আছে।’

বনশালীর উদ্দেশে স্বরা আরও বলেন, ‘আপনার ছবি অনুপ্রেরণামূলক, শিল্পানুগ ও শক্তিশালী। এই ছবি দর্শকদের আবেগপ্রবণ করে তোলে। শেষ দৃশ্যে যখন লাল পোশাক পরা নারীরা যখন মৃত্যুর দিকে এগিয়ে চলেছেন, সেটা দেখে দর্শকরা পলক ফেলতে পারেন না।

তারা আপনার এই কাজের প্রশংসা করতে বাধ্য। এই দৃশ্য দর্শকদের চিন্তা-ভাবনা প্রভাবিত করে। তবে আপনি ছবিতে যেটা দেখিয়েছেন, সেটার জন্য আপনিই দায়ী।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য