“কুষ্ঠ আক্রান্ত বালক-বালিকায় আর কোন প্রতিবন্ধিতা নয়” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এর আয়োজনে ডিমলা কুষ্ঠ ও সাধারন প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সহযোগিতায় আজ রবিবার সকালে ৬৫তম বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস-২০১৮ পালন করা হয়। এ উপলক্ষ্যে একটি র‌্যালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে বের হয়ে ডিমলা উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মিলিত হয়ে একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও প.প. কর্মকর্তা ডা: মো. সারোয়ার আলম। সভা প্রধান ছিলেন ডিমলা কুষ্ঠ ও সাধারন প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা সভাপতি রফিকুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন যক্ষ্মা ও কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রক সহকারী (এটিএলসিএ) গোলাম রব্বানী, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক মহাদেব রায়, সাবেক স্বাস্থ্য পরিদর্শক ইনচার্জ লোকমান হোসেন, পরিদর্শক ইনচার্জ ফজলুল হক, এমটিইপিআই অজিত কুমার সিংহ রায়, সিডিএফ কমিউনিটি প্রোগ্রাম রঞ্জিতা রানী রায়, জেলা প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সাধারন সম্পাদক সোলায়মান আলী।
সভা সঞ্চলনায় ছিলেন মমিনুর রহমান।

প্রধান অতিথি কুষ্ঠ সম্পর্কে বলেন, কুষ্ঠ কোন ছোঁয়াছে রোগ নয় নিয়মিত চিকিৎসায় এ রোগ ভাল হয়। চামরা হালকা ফ্যাকেশে বা লালচে, অবশ দাগ দেখা দিলে বুঝে নিতে হবে এটি কুষ্ঠ রোগের প্রথম লক্ষন। এছাড়াও শরীরের মধ্যে গুটি গুটি থাকতে পারে এরূপ দেখা দিলে তাৎক্ষনিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে তাদের জন্য সুচিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য