দিনাজপুরঃ কৈশোর থেকে গণতন্ত্র চর্চা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ উন্নয়নে আনন্দঘন উৎসবের মধ্য দিয়ে দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হলো স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন।

২৭ জানুয়ারী শনিবার প্রচন্ড শীতকে উপেক্ষা করে দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা ভোট প্রদান করেছে। বিদ্যালয়ের প্রভাতী শাখার মেয়েদের ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত ৮টি পদে ২২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে এবং ছেলেদের দিবা শাখায় ৮টি পদে ১২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। ভোটের বুথ করা হয়েছে ছেলেদের দুটি ও মেয়েদের দুটি।

মোট ভোটারের সংখ্যা ৮৫০ জন। নির্বাচন কমিশনার প্রভাতী শাখার দশম শ্রেণীর ছাত্রী শাম্মী সরকার সূচনা ও দিবা শাখার দশম শ্রেণীর ছাত্র কৌশিক বসাক জানায়, আনন্দ-উৎসবের মধ্য দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা এবার ভোট প্রয়োগ করেছে।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নেজামুল ইসলাম, শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, সহকারী প্রধান শিক্ষক দিবা শাখা মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, প্রভাতী শাখার সহকারী প্রধান শিক্ষক (ভারঃ) রবিউজ্জামান, কামরুন নাহার-১, ইলা ভূট্টাচার্য, আহসান আক্তার, কোহিনুর বেগম, কামরুন নাহার-২, রুনা লায়লা, হাসিনা আক্তার, তৈমুর হোসেন, আনিসুজ্জামান।

ভোটে নির্বাচিত হয় প্রভাতী শাখা মেয়েদের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ক- জান্নাতুন ফেরদৌস মৌ, খ-মোছাঃ সুরাইয়া (বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়), ৭ম শ্রেণীর ক-আনিকা, খ-সাদিয়া, ৮ম শ্রেণীর শারমিন আক্তার, ৯ম শ্রেণীর প্রিয়া মনি ও ১০ম শ্রেণীর তাসনিমা জান্নাত রিমি ও বন্যা আক্তার শারমীন।

দিবা শাখার ছেলেদের ৬ষ্ঠ শ্রেণী ক-মোঃ ফেরদৌস, খ-মোঃ ফিরোজ হাসান, ৭ম শ্রেণীর ক-রিমন আলী, খ-অমিত হাসান, ৮ম শ্রেণীর ওমর জাহিন, ৯ম শ্রেণীর রকিব ইসলাম রহিত, ১০ম শ্রেণীর মোঃ তৌহিদুর রহমান তুহিন ও ভোকেশনাল বিভাগের মেহেদী হাসান।

উল্লেখ্য, শিশুকাল থেকে গণতন্ত্রের চর্চা, অন্যের মতামতের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ উন্নয়ন কর্মকান্ডে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ ছাড়াও ক্রীড়া, সাংস্কৃতি ও সহশিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করনে বর্তমান সরকার সারাদেশে এই নির্বাচন চালু করেছে।

বিরলঃ শনিবার সারাদেশের ন্যায় দিনাজপুরের বিরল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোট ২৮৮ জন ভোটার১২ জন প্রার্থীর মধ্যে বিভিন্ন পদে ৮জনকে মনোনীত করেছে।

নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন, বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী জোবাইদা আকতার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী সানজিদা আকতার শিমু ও ৯ম শ্রেণির ছাত্রী জেনিফার ফেরদৌস। প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন, ১০ম শ্রেণির ছাত্রী নাসরিন আকতার।

সহকারী প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেস যথাক্রমে ৯ম শ্রেণির ছাত্রী পায়েল সরকার ও ১০ম শ্রেণির ছাত্রী মেঘলা আকতার। পোলিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন যথাক্রমে ১০ম শ্রেণির ছাত্রী রাফিয়া আকতার, সাবরিনা ইয়াসমিন, ৯ম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আকতার মিতু ও ৮ম শ্রেণির ছাত্রী ফারজিনা খাতুন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য