মোঃ লিহাজ উদ্দীন মানিক, বোদা (পঞ্চগড়) থেকেঃ পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার চায়ের দোকানগুলো যেন মিনি মিনেমা হলে পরিনত হয়েছে। বোদা পৌরসভাসহ উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট-বাজার ও রাস্তার মোড়গুলোর চায়ের দোকান যেন মিনি সিনেমা হল। এক সময় বোদা উপজেলার একটি মাত্র সিনেমা হল ছিল যার নাম মনবি টকিজ।

পরবর্তীতে আরো একটি সিনেমা হল গড়ে উঠে যার নাম স্বর্ণহার সিনেমা হল। দুটি সিনেমা হলের অবস্থান পাশাপাশি হলেও দর্শকদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। প্রত্যন্ত এই উপজেলাটিতে তেমন বিনোদনের কোন সুয়োগ না থাকায় সিনেমা হল দুটি সব সময় দর্শকের ভিড় দেখা যেতো।

এই সিনেমা হলে বিভিন্ন শ্রেণী পেশাজীবি মানুষরা বিনোদন উপভোগ করত। কিন্তু কালের আবর্তনে সিনেমা হল দুটি বন্ধ হয়ে যায়। সম্প্রতি প্রযুক্তির ব্যাপক প্রসারে গড়ে উঠে অসংখ্য কম্পিউটার ও মোবাইলের দোকান। এ দোকানগুলোতে চলে বিনোদন নামের অশ্লীল ছবি।

বর্তমানে রাস্তা ঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হওয়ার কারণে গ্রাম-গঞ্জের যেখানে সেখানে গড়ে উঠেছে অসংখ্য চায়ের দোকান। আর এই চায়ের দোকনগুলো মিনি সিনেমা হলে পরিণত হচ্ছে। এসব মিনি সিনেমা হলে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা এসব চায়ের দোকানে বসে স্কুল ফাঁকি দিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা বিভিন্ন ধরনের সিনেমা দেখছে।

উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারের চায়ের দোকান গুলোতে বেচা-বিক্রি বেশি হওয়ার আশায় অধিকাংশ চায়ের দোকানে রঙ্গিন টেলিভিশন, সিডি সেট ও ডিস লাইনের মাধ্যমে প্রায় অশ্লীল ছবি দেখানো হচ্ছে। এর ফলে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও পথচারীরা দোকানে বসে অধিক সময় ধরে টেলিভিশন দেখতে দেখা যাচ্ছে।

ফলে চায়ের দোকানে সর্বদা ভিড় লেগেই থাকে। অনেক দোকানদার জানান, দোকানে টেলিভিশন চালালে ক্রেতা বেশি আসে। দিনে-রাতে বেচা-বিক্রিও ভাল হয় বলে তারা সিডি সেটের মাধ্যমে সিনেমা চালিয়ে থাকে। সচেতন মহল এ ব্যাপারে ছাত্র ও শিশুদের ভবিষ্যতের দিক বিবেচনা করে চায়ের দোকানে সিডি চালানো বন্ধের দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য