অবিরাম বর্ষণে সেইন নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ভয়াবহ বন্যার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেছে ফ্রান্সের প্যারিস শহর। ইতিমধ্যে শহরের নদীর তীরবর্তী অনেক বাড়ির বেজমেন্ট পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে সপ্তাহান্তে পানি স্বাভাবিক উচ্চতার চেয়ে কয়েকমিটার বাড়তে পারে। ওই অঞ্চলের অনেক রাস্তা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। পানি ঢুকে পড়ায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে লুভ্যর জাদুঘরের একাংশ।

আশঙ্কা করা হচ্ছে নদীর পানি স্বাভাবিক উচ্চতার চেয়ে ৬ মিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে। শহরের পরিচিত ক্রিমিয়ান সৈনিকের ভাস্কর্য জোভেকে ব্যবহার করা হচ্ছে পানির উচ্চতা বৃদ্ধির নির্দেশক হিসেবে।

শুক্রবার পর্যন্ত এর হাটুর ওপরে পর্যন্ত পানির নিচে তলিয়ে ছিলো। তবে ১৯১০ সালের বন্যায় ভাস্কর্যটির গলা পর্যন্ত পানি পৌঁছেছিল। সেবার দুই মাস ধরে পানির নিচে ছিলো প্যারিস শহর।

পরবর্তী সপ্তাহ পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে শহরের ব্যস্ত কমিউটার ট্রেন সার্ভিস।বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পর্যটকদের কাছে আকর্ষণীয় নদীভ্রমণ স্পটসহ বেশ কিছু নৌচলাচল। বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় লুভ্যর যাদুঘরের ইসলামিক আর্টস অংশ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

বন্যার এই সময়ে শহরে ইদুরেরও আনাগোনা বেড়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে ইদুরের কারনে সংক্রমনের হার স্বাভাবিকের চেয়ে বেড়েছে।

প্যারিসের মেয়র অ্যানে হিদালগো বলেছেন, এটা পরিষ্কার যে আমাদের শহর জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাওয়াচ্ছে। পরবর্তী সপ্তাহ পর্যন্ত জলাবদ্ধতা থাকতে পারে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য