রাশিয়ার শক্তি বিষয়ক সহকারী মন্ত্রী আন্দ্রে চেরেজভসহ ২১ ব্যক্তি ও ৯ প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। শুক্রবার রাশিয়া ও ইউক্রেন সংক্রান্ত এসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সি এ খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, ক্রিমিয়ায় স্থাপনের জন্য চারটি টাইবাইন নিয়ে যাওয়ার জন্য চেরেজভ ও রাশিয়ান শক্তি মন্ত্রণালয়ের একটি বিভাগের প্রধান এভগেনিয় গ্রাবচাকসহ তিনজনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মার্কিন প্রশাসন। এ ঘটনায় জড়িত দুটি প্রতিষ্ঠানকেও নিষিদ্ধ তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। ২০১৭ সালে রাশিয়ান-জার্মান যৌথ উদ্যোগে টাইবাইনগুলো স্থাপন করার পর এই উদ্যোগ নেওয়া হল।

মার্কিন রাজস্ব বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়, চুক্তি অনুযায়ী ক্রিমিয়ায় টাইবাইনের ব্যবহারের ওপর পরিষ্কার নিষেধাজ্ঞা ও তা না করতে বার বার আশ্বস্ত করার পরও সেখানে টাইবাইন স্থানান্তর করা হয়েছে। সেগুলো সফলভাবে স্থাপন করা হলে তা ক্রিমিয়ায় রাশিয়াকে আবারও দখলদারি চালাতে সহায়তা করবে। কারণ এর মাধ্যমে ক্রিমিয়া ও সেভাস্তপোলে স্বাধীনভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাবে।’

রাজস্ব বিভাগের মন্ত্রী স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘যুক্তরাষ্ট্র সরকার ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব ও ভৌগলিক অখণ্ডতা রক্ষা এবং মিনস চুক্তি লঙ্ঘনের চেষ্টাকারীদের রুখতে বদ্ধপরিকর। যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে পণ্য, সেবা ও যন্ত্রপাতির মাধ্যমে যারা সহায়তা করবে তারাও মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়বে।’

এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় টারবাইন স্থানান্তরের সঙ্গে জড়িতরা ছাড়াও ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদী ১১ ব্যক্তিকে রাখা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ‘ইউক্রেনের শান্তি, নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা, সার্বভৌমত্ব ও ভৌগলিক অখণ্ডতা’কে হুমকির মুখে ফেলার অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদের মধ্যে দেশটির ডোনেতসক পিপল’স রিপাবলিক দলের ১০ নেতাকে রাখা হয়েছে।

এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মার্কিন নাগরিকদের যে কোনও ধরনের ব্যবসা বা লেনদেন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে এসব ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় সম্পদ স্থগিত করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য