কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ কাহারোলে অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান প্রকল্পে ১৮১৫ জন শ্রমিক কাজ করে পাল্টে দিয়েছে জরাজীর্ণ রাস্তাগুলোর চিত্র। দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান প্রকল্পের আওতায় ৪০ দিনের কর্মসূচীর কাজ গত ৯ ডিসেম্বর’১৭ থেকে শুরু হয়ে এবং চলবে আগামী ফ্রেব্রুয়ারী’১৮ মাসের ৪ তারিখ পর্যন্ত।

কাহারোল উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের ৩৬টি প্রকল্পের আওতায় ১ হাজার ৮শ ১৫ জন শ্রমিক প্রতিনিয়ত কাজ করতে দেখা যাচেছ। ৩৬ টি প্রকল্পের বিপরীতে ১ কোটি ৪৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা বরাদ্দ প্রদান করেছেন সরকারের দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রনালয়।

শ্রমিকরা প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কাজ করছেন নির্ধারিত প্রকল্পগুলোতে। একজন শ্রমিক প্রতিদিন দুইশত টাকা হারে মুজুরি পেয়ে থাকেন। গতকয়েক দিন সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে দেখা গেছে, সুন্দরপুর ইউনিয়নের পূর্ব-মল্লিকপুর ও সাইনগর রাস্তায় শ্রমিকরা মাটির কাজ করছেন।

এ কর্মসূচীর আওতায় শুধু মাত্র রাস্তা সংস্কার নয় । রাস্তার মাটি ভরাট কাজ ছাড়াও বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠে মাটি ভরাট কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন (পিআইও) অফিসের উপ-সহকারি প্রকৌশলী মোঃ কুতুব উদ্দিন জানান, আজ পর্যন্ত প্রকল্পের ৬০ ভাগ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।

এদিকে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পি.আই.ও) মোঃ জিয়াউর রহমান জানান, অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান ৪০ দিনের কর্মসূচীর কাজ এখন পুরোদমে শুরু হয়েছে এবং প্রতিটি প্রকল্পের জন্য আলাদা ভাবে সুপার ভাইজাররা প্রকল্পের কাজগুলো নিয়মিত তদারকি করছে।

৪০ দিনের কর্মসূচির কাজ পেয়ে খুশি হয়ে কয়েক জন মহিলা শ্রমিক মিনতি রানী রায়, বন্যা রানী রায়, কনিকা রানী রায়, আফিজা বেওয়া, ফিরোজা বেগম জানান, প্রকল্পের কাজ করে যে টাকা পাই,সেই টাকা দিয়ে সংসার চালাই এবং ৪০ দিন কাজ করার পর মোট ৮ হাজার টাকা পাওয়া যায়।

সপ্তাহে যে টাকা পাই তাই দিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে কোন রকম সংসারটা চালিয়ে যাচ্ছি। শ্রমিকরা আরোও বলেন, বর্তমানে বাজারে প্রতিটি জিনিসপত্রের দাম বেশি হওয়ায় সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছি তাই মজুরী প্রতিদিন ৩শ টাকা করে হলে ভালোই হত। তাই তারা এ ব্যাপারে সরকারের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের জরুরী আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য