দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর সদর উপজেলার ৮নং শংকরপুর ইউনিয়নের জালালপুর এম আব্দুর রহিম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য উন্নতমানের পুষ্টিকর খাবার ডিম ও দুধ বিতরন করা হয়।

প্রধান অতিথি ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুর রহমান। ২৫ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দিনাজপুর জেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর আয়োজন করে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর কোতয়ালী আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ৭নং উথরাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, দিনাজপুর জেলা প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ কাজী মাহবুবুর রহমান, এম আব্দুর রহিম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গভনিং বডির সভাপতি মোঃ মাতলুবুল মামুন, স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ নুরুজ্জামান সরকার, কোতয়ালী আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক মোঃ আশরাফুল আলমসহ অন্যান্যরা।

এদিকে সাম্প্রতিকালে ভয়াবহ বন্যায় দিনাজপুরে ক্ষতিগ্রস্থ ৪৭টি পরিবার নতুন ঘর পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়ে উঠেছে। ২৫ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার সদর উপজেলার ৭নং উথরাইল ইউনিয়নের সেন্দুরালি গ্রামে ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ৪৭টি পরিবারকে পুণর্বাসনে জেলা প্রশাসন কর্তৃক নির্মিত ৪৭টি ঘর হস্তান্তর করেন প্রধান অতিথি সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুর রহমান।

কোতয়ালী আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ৭নং উথরাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, ৭নং উথরাইল ইউনিয়ন সদস্য মোঃ সিরাজুল ইসলাম, শেফালী রায়, দিনাজপুর কোতয়ালী আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক মোঃ আশরাফুল আলম প্রমুখ।

সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আব্দুর রহমান বলেন, বন্যার পর জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি কথা দিয়েছিলেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের ঘর নির্মাণ করে দেয়া হবে। সেই কথা আজ বাস্তবে রুপ নিলো। জেলা প্রশাসন ত্রাণ ও পুনর্বাসনের আওতায় ৪৭টি পরিবারকে সরকারি অর্থে এ ঘর নির্মাণ করে দিলো।

আনন্দে আত্মহারা ৬০ বছর বয়সী আশ্রয়হীন নিতাই নতুন ঘর পেয়ে বলেন, বন্যার পর খোলা আকাশের নিচে পরিবারকে নিয়ে দিনরাত অতিবাহিত করেছি। দিনাজপুরের এমপি হুইপ ইকবালুর রহিম কথা দিয়েছিল ঘর করে দিবে।

আমরা সে ঘর পেয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও এমপি ইকবালুর রহিমের জন্য দোয়া করি। এসময় আশ্রয়হীন মংলু, নারায়ন, গোপাল চন্দ্র, সমবালাসহ ৪৭জনকে ঘর হস্তান্তর করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য