আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা থেকেঃ বাংলাদেশ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে ২০১৭ সালের প্রাইমারী স্কুল সার্টিফিকেট (পিএসসি) পরীক্ষায় গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ী ইউপির জুমারবাড়ী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শতভাগ জিপিএ-৫ ফলাফল অর্জন করেছে। এই প্রতিষ্ঠান থেকে ৪৬ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে এবং ৪৬ জন পরীক্ষার্থীই জিপিএ-৫ পেয়ে সকলেই কৃতকার্য হয়। এই স্কুলের বিগত ৭ বছরের ফলাফলে পাসের হার শতভাগ।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, জুমারবাড়ী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯০৩ সালে স্থাপিত হয়। শিক্ষকের অনুমোদিত পদ ১১ জন থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে ৯জন দায়িত্ব পালন করছেন। এরমধ্যে প্রায় এক বছর থেকে ১টি পদ শুন্য ও অপর ১জন মার্তৃকালীন ছটিতে আছেন।

শ্রেণিকক্ষ সংকট থাকার কারণে এক সিফটে পাঠদান দেয়ার কথা থাকলেও বর্তমানে দুই সিফটে দিতে হচ্ছে। ২০১১ সালের ২০ ফেব্র“য়ারিতে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন মো শরিফুল ইসলাম সোহাগ।

প্রধান শিক্ষকের যোগদানের পর থেকেই এই বিদ্যালয়ের শিক্ষার মান ও ছাত্রছাত্রীদের ফলাফল উন্নতির বিকাশ ঘটিয়েছেন।

তার নিরলস পরিশ্রমে ধারাবাহিকভাবে শতভাগ পাশের মাঝে শতভাগ জিপিএ-৫ অর্জন করছে শিক্ষার্থীরা। ২০১১ সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৪৯জন অংশগ্রহন করে এর মধ্যে ৫জন জিপিএ-৫ ও ৪৪জন পরীক্ষার্থী ‘এ’ গ্রেড, ২০১২ সালে সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৩৪জন অংশগ্রহন করে এরমধ্যে ৮জন জিপিএ-৫ ও ২৬জন পরীক্ষার্থী ‘এ’ গ্রেড, ২০১৩ সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৫০জন অংশগ্রহন করে এর মধ্যে ১৪জন জিপিএ-৫ ও ৩৬জন পরীক্ষার্থী ‘এ’ গ্রেড, ২০১৪ সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৪৬জন অংশগ্রহন করে এর মধ্যে ২৭জন জিপিএ-৫ ও ১৯জন পরীক্ষার্থী ‘এ’ গ্রেড, ২০১৫ সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৫০জন অংশগ্রহন করে এরমধ্যে ৪১জন জিপিএ-৫ ও ৯জন পরীক্ষার্থী ‘এ’ গ্রেড, ২০১৬ সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৬২জন অংশগ্রহন করে এরমধ্যে ৩৯জন জিপিএ-৫ ও ২৩জন পরীক্ষার্থী ‘এ’ গ্রেড এবং ২০১৭ সালে পিএসসি পরীক্ষায় মোট ৬৪জন অংশগ্রহন করে এরমধ্যে ৬৪জন জিপিএ-৫ পেয়ে কৃতকার্য হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য