দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার বৈধ রাস্তায় অবৈধ যানবাহনের চলাচলে জন জীবন অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। রাস্তাগুলো নছিমন, অটোচার্জার, অটোচার্জার রিক্সাভ্যান, শ্যালো ইঞ্জিন দ্বারা চালিত ট্রলি, এবং ট্রাক্টরের বেপরোয়া চলাচলের কারনে সাধারন চলচলকারীরা দূর্ঘটনা আতংকে ভূগছে। গত কয়েকদিনে বেশ কয়েকটি দূর্ঘটনা ঘটেছে।

এসব দূর্ঘটনায় কেউ প্রাণ হারিয়েছে আবার কেউ পঙ্গুত্ব বরন করেছে। দলার-দরগা-হিলি সড়কে দূর্ঘটনায় মারা যায় বোয়ালদাড় গ্রামের ইনতাজ আলী। ভাদুরিয়ার নিকট দূর্ঘটনায় মারা যায় কানাগাড়ী গ্রামের সফিরুল ইসলাম। এছাড়াও আহত হয়েছে প্রায় ১০/১২ জন। সবচেয়ে বেশী বেপরোয়া চলছে ট্রাক্টরগুলো।

ট্রাক্টরগুলোতে দিবা রাত্রী ইট ভাটার মাটি, ইট, বালু বোঝাই করে ছোট রাস্তায় বেপরোয়া ভাবে চলাচল করছে। এসব কোনটিরও চালকের কোন প্রশিক্ষন নাই। জানা যায় চাষাবাদের জন্য আমদানি করা ট্র্ক্টারগুলো অনুমোদন বিহীন রাস্তায় নামিয়ে অদক্ষ চালকেরা চালিয়ে মরণ ফাঁদের সৃষ্টি করেছে।

নবাবগঞ্জ উপজেলায় ৮৬টি শুধু ট্রাক্টরই রয়েছে বলে একজন ট্রাক্টর মালিক জানান। এসব অবৈধ যানবাহন প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশনা আছে কিনা সে ব্যাপারে নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সুব্রত কুমার সরকারের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান ওই সবের বিরুদ্ধে মাঝে মাঝেই অভিযান চালানো হয়।

সাধারনত ট্রাফিক পুলিশ ওই অভিযান চালিয়ে জরিমানা করে থাকে। দিনাজপুর ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শকের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান ফুলবাড়ীতে একজনকে দায়িত্ব দেয়া আছে। তিনি দেখবেন। তিনি না পারলে সেখানে সার্জেন্ট পাঠানো হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য