দিনাজপুর সংবাদাতাঃ আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইস্কন) শ্রী শ্রী রাধাকৃষ্ণ মন্দির গুঞ্জাবাড়ী, রাজবাড়ি, দিনাজপুর এর আয়োজনে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী দিনাজপুর অডিটরিয়ামে ইস্কন ইয়ুথ ফেস্টিবল-২০১৮ অনুষ্ঠিত হয়।

২৩ জানুয়ারী মঙ্গলবার দিনাজপুর গুঞ্জাবাড়ীস্থ ইস্কন মন্দিরের অধ্যক্ষ শ্রী পাদ বিক্রমী রমা দাস এর সভাপতিত্বে প্রধান বক্তা ও আশির্বাদক হিসেবে বক্তব্য রাখেন রংপুর তারাগঞ্জ ইসকন মন্দিরের অধ্যক্ষ ও ইসকন বাংলাদেশের সিনিয়র সহ-সভাপতি শ্রী শ্রীমৎ ভক্তি প্রিয়ম গদাধর গোস্বামী মহারাজ। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঠাকুরগাঁও গড়েয়া ইসকন মন্দিরের অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ ইসকনের সহ-সভাপতি শ্রী পাদ পুষ্পশীলা শ্যাম দাস।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মায়াপুর নদীয়া ভারত হতে আগত সংকীর্তন বিভাগের পরিচালক শ্রীপাদ বেনুধারী দাস ব্রহ্মচারী ও গীতা একাডেমীর পরিচালক শ্রীপাদ আনন্দ বর্ধন দাস ব্রহ্মচারী। ইসকন বাংলাদেশ ঢাকার যুগ্ম সম্পাদক শ্রীপাদ জগতগুরু গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারী ও দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরূপ বকসী বাচ্চু।

অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন দিনাজপুর ইসকন ইয়ুথ ফোরামের পরিচালক শ্রীমান রাধাপতি কৃষ্ণ দাস ব্রহ্মচারী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জ্যাতিশ্বর গৌর দাস ব্রহ্মচারী, সর্বাত্মা বলরাম দাস ব্রহ্মচারী, মাধুর্য কেশব দাস ব্রহ্মচারী। বক্তারা বলেন, দেহ থেকে মনকে যেমন আলাদা করা যায় না তেমনি সনাতন ধর্ম থেকে আমাদের আলাদা করা যাবে না। আত্মা ছাড়া শরীরের কোন মূল্য নেই। আমাদের যদি জীবন রক্ষা করতে হলে ভগবানের কাছে আত্মসমর্পন করতে হবে।

ইন্দ্রিয় ও মনকে ভগবানের নিকট নিয়ন্ত্রিত রাখতে হবে। গীতা হচ্ছে জীবন যুদ্ধে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার মূলমন্ত্র। মনকে নিয়ন্ত্রণ রাখতে হলে সাধুসংঘ দরকার। কলির যুগে ঈশ্বরের সংগে যোগাযোগ রাখতে পাসওয়ার্ড হলো হরিনাম কীর্তন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য