সিরিয়ার কুর্দি ওয়াইপিজি বাহিনীকে সহায়তা বন্ধ করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ক। তুরস্ক কুর্দি বাহিনীটির বিরুদ্ধে সিরিয়ার আফরিন ছিটমহলে অভিযান চালাচ্ছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, কুর্দি যোদ্ধারা তুর্কি সেনাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সরবরাহ করা অস্ত্র ব্যবহার করছে। তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সিরিয়া সীমান্তে পিকেকের কোনও ধরনের রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা আমরা সহ্য করব না।’

তুরস্ক কুর্দি মিলিশিয়া দলটিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে মনে করে। তারা দলটিকে তুরস্কে আলাদা রাজ্য দাবিকারী কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির বর্ধিত অংশ বলে মনে করে। তুরস্কে ১৯৮৪ সাল থেকে গেরিলা যু্দ্ধ করে আসছে পিকেকে। তবে ওয়াইপিজি দলটির সঙ্গে তাদের সরাসরি সম্পর্কের কথা বার বার অস্বীকার করে আসছে।

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আইএস বিরোধী লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম প্রধান মিত্র ছিল কুর্দি বাহিনী।

সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযানের বিষয়টি নিয়ে সোমবার জাতিসংঘ ‍নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনা হয়েছে। তবে এতে হামলার নিন্দা জানানো হয়নি। সেখানে আঙ্কারা আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শেষ উল্লেখ করে ওয়াইপিজির সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের শেষ করার দাবি জানিয়েছে।

তুরস্কের হামলার পর আফরিন থেকে হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। আর সিরিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, শনিবার হামলা শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৭০ জন নিহত হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য